অমিত শাহ তাঁর দুই দিনের সফরের অংশ হিসেবে আজ সকালে কোচবিহারের ভারত-বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকা তিন বিঘায় যান। সেখানে তিনি সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করে বিএসএফ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে যোগ দেন। তিন বিঘায় থাকাকালেই তিনি অর্জুন চৌরাশিয়ার লাশ উদ্ধারের খবর পান। এরপর তিনি নির্ধারিত সফরসূচি পরিবর্তন করে কাশীপুরে আসেন।

কাশীপুরে পৌঁছে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন অমিত শাহ। স্থানীয় বাসিন্দারা এই ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি তোলেন। একই সময়ে তিনি কথা বলেন অর্জুনের মাসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যের সঙ্গে। তিনি তাঁদের আশ্বস্ত করে বলেন, বিজেপির যুবকর্মী অর্জুন চৌরাশিয়ার মৃত্যুর তদন্ত যথাযথ হবে। বিজেপি এই নিয়ে উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হবে। এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত রিপোর্ট আজকের মধ্যে রাজ্য সরকারকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর নির্দেশ দেন তিনি।

অমিত শাহ এ সময় সাংবাদিকদের বলেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে অর্জুন চৌরাশিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে এবং বিরোধী রাজনীতিকে স্তব্ধ করতে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। এটা জঘন্য হত্যাকাণ্ড। গতকালই ছিল তৃণমূলের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান। আর আজ ভোরে পাওয়া গেল বিজেপির যুবনেতা অর্জুনের মরদেহ। এটা এই বাংলার বিরোধীদের কণ্ঠ রোধের এক অপচেষ্টার ফসল। বিজেপি এই হিংসার রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেয় না, ভয় পায় না।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন