অযোধ্যা মামলার শুনানি ফের পিছিয়েছে

বিজ্ঞাপন
default-image

ভারতের সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যা মামলার শুনানি ফের পিছিয়ে গেছে। শুনানির নতুন তারিখ ২৯ জানুয়ারি।

দেশটির সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে আজ বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বেঞ্চের এক বিচারপতি মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ায় আজ শুনানি ফের পিছিয়ে যায়।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন বিচারপতি ইউ ইউ লোলিত।

মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে বিচারপতি লোলিতের যুক্তি, এ–সংক্রান্ত একটি মামলায় আইনজীবী ছিলেন তিনি।

বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি এস এ বোবদে, এন ভি রামানা ও ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়া।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ আজ বলেছেন, যেহেতু বিচারপতি লোলিত এই মামলায় আর অংশ নিতে চাইছেন না, তাই ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করা হলো। বিচারপতি লোলিতের স্থলে সুপ্রিম কোর্টের আরেকজন বিচারপতিকে এনে পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ পুনর্গঠন করে মামলার শুনানি করা হবে।

ছয় দশক ধরে আলোচিত অযোধ্যা মামলাটি ঝুলে আছে। গত বছর দেশটির সুপ্রিম কোর্টে মামলার শুনানি দ্রুত করার আবেদন জমা হয়। আবেদনটি খারিজ করেন আদালত।

এলাহাবাদ হাইকোর্ট ২০১০ সালে অযোধ্যা বিতর্কের সমাধানে বিতর্কিত ২ দশমিক ৭৭ একর এলাকাকে তিনটি সমান ভাগে ভাগ করার নির্দেশ দেন। একটি ভাগ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের, এক ভাগ নির্মোহী আখড়ার, তৃতীয় ভাগ রাম লালার (শিশু রামচন্দ্র)। এই রায়ের বিরুদ্ধে সব পক্ষই সুপ্রিম কোর্টের যায়।

১৯৯২ সালের ২ ডিসেম্বর অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধূলিসাৎ হওয়ার আগে থেকেই রাম মন্দির-বাবরি মসজিদ মামলা চলে আসছে। এটি দেশটির অন্যতম বিতর্কিত ইস্যু।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন