বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির কারণে চলতি বছরে অনুষ্ঠিত হয়নি কলকাতা বইমেলা। এর আগে ২০২০ সালে বইমেলার থিম কান্ট্রি ছিল রাশিয়া। সেবারের বইমেলায় বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন তৈরি হয়েছিল শান্তিনিকেতনের বাংলাদেশ ভবনের আদলে। প্যাভিলিয়নে ঠাঁই পেয়েছিল বাংলাদেশের ৪১টি প্রকাশনা সংস্থা।

পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ডের সভাপতি সুধাংশু শেখর দে আজ সোমবার প্রথম আলোকে বলেন, কলকাতার বইমেলা নিয়ে রাজ্য সচিবালয় ‘নবান্নে’ রাজ্যের মুখ্য সচিবের সঙ্গে পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ডের কর্মকর্তাদের বৈঠক হয়েছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে করোনার বিধিনিষেধ মেনেই আগামী বছর বইমেলা অনুষ্ঠিত হবে।

সুধাংশু দে আরও বলেন, প্রতিটি স্টলে হ্যান্ড স্যনিটাইজারের ব্যবস্থা থাকতে হবে। তবে মেলার প্রবেশদ্বারে টিকা নেওয়ার প্রমাণপত্র দেখাতে হবে না। আগামী বইমেলায় স্টলের সংখ্যা কমানো হচ্ছে না। তবে স্টলের পরিধি কিছুটা কমবে। স্টল থাকছে যথারীতি ৮০০টি। এর মধ্যে লিটল ম্যাগাজিনের স্টল হবে ২০০টি।

গিল্ড সভাপতি জানান, এ বছরের বইমেলার থিম কান্ট্রি ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু করোনার কারণে মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি। তাই আগামী বছরে বাংলাদেশকেই থিম কান্ট্রি রাখা হয়েছে। বইমেলা উৎসর্গ হবে বঙ্গবন্ধুর নামে।

২০২২ সালে কলকাতা বইমেলা ৪৬ বছরে পা দিচ্ছে। আসন্ন এ বইমেলার আয়োজন করা হবে সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে। মেলা শেষ হবে ১৩ ফেব্রুয়ারি।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন