বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বেফাঁস মন্তব্যের জন্য অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্টর জুড়ি নেই রাজ্যজুড়ে। তিনি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি।

আজ দুপুরে অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতা সিবিআই দপ্তরে গিয়ে জানান, অনুব্রতর প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিয়েছে। এরপরই তাঁকে কলকাতার পিজি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অনুব্রতর আইনজীবী আরও বলেছেন, সিবিআইয়ের সঙ্গে কথা বলতে অনুব্রত প্রস্তুত আছেন। সিবিআই চাইলে অনুব্রতকে জেরা করতে পিজি হাসপাতালে যেতে পারে। অন্যদিকে সিবিআই বলেছে, তারা এখনো হাসপাতাল থেকে কোনো চিঠি পায়নি। চিঠি পাওয়ার পর সিবিআই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

সিবিআইয়ের দপ্তরে সাক্ষ্য দিতে গেলে গ্রেপ্তারের ভয় আছে বলেই অনুব্রত তা এড়িয়ে চলছেন বলে মনে করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের নামে যাতে সিবিআই গ্রেপ্তার করতে না পারে সেই নিশ্চয়তা চেয়ে এর আগে কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করেন অনুব্রত। হাইকোর্ট তাঁর সেই আবেদন খারিজ করে দেন।

এরপর অনুব্রত ফের সেই রক্ষাকবচের আবেদন করেন কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে। সেই আবেদনের শুনানি হয় কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব ও বিচারপতি রাজর্ষী ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে। ডিভিশন বেঞ্চও শুনানির পর খারিজ করে দেন অনুব্রতের রক্ষাকবচের আবেদন। হাইকোর্ট জানিয়ে দেন, বারবার আদালতকে ঢাল হিসেব ব্যবহার করা যাবে না। কোনো তদন্তে আদালত এভাবে সিবিআইর হাত বাঁধতে পারে না। এ আদেশ পাওয়ার পর কার্যত মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন অনুব্রত।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন