বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আগামী বছর উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন হবে। ৪০৩টি আসনের মধ্যে ২৩৯ থেকে ২৪৫টি আসনে এগিয়ে আছে বিজেপি। পাঁচ বছর আগে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে রাজ্যে সরকার গঠন করেছিল বিজেপি। ১৪ বছর পর উত্তর প্রদেশে ক্ষমতায় আসার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উন্নয়ন এবং মুখ হিসেবে যোগী আদিত্যনাথ ছিল বাজির ঘোড়া। পাঁচ বছর পর একই বাজিতে এগোতে চায় গেরুয়া শিবির।

জনমত জরিপে বলা হয়েছে, সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের দল সমাজবাদী পার্টি ১১৯ থেকে ১২৫ আসনে এগিয়ে থেকে প্রধান বিরোধী দল হতে পারে। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি) পেতে পারে ২৮ থেকে ৩২ আসন। আর উত্তর প্রদেশে জোট না করে ভোট করার ঘোষণা দেওয়া রাহুল-প্রিয়াঙ্কা গান্ধীরা পেতে পারেন পাঁচ থেকে আটটি আসন।

default-image

আইনশৃঙ্খলার অবনতি, করোনায় জেরবার অবস্থা নিয়ে যোগী আদিত্যনাথের সরকারকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করে যাচ্ছে বিরোধীরা। এরপরও জরিপে দেখা যাচ্ছে, রাজ্যে ৫০ শতাংশের বেশি মানুষ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথকেই চান ভোটাররা।

২০১৭ সালে ৩১২ আসন জয়ের পর সরকার গঠন করে বিজেপি।

default-image

২০২২ সালে কী হবে, কে সরকার গঠন করতে পারে? ৯ হাজার জনমতের ওপর ভিত্তি করে এ সমীক্ষা করেছে টাইমস নাউ ও পোলস্টাট। জরিপে দেখা যাচ্ছে, পশ্চিম উত্তর প্রদেশ অঞ্চলে একমাত্র বিজেপিকে বিরোধীদের কঠোর বিরোধিতার মুখোমুখি পড়তে হতে পারে। রাজ্যের সবচেয়ে বেশি আসন পূর্বাঞ্চলে ৯২টি আসনের মধ্যে বিজেপি এগিয়ে ৪৭ থেকে ৫০ আসনে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন