default-image

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের পথে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (পি কে) বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে কাজ শেষ, এবার তাঁর বিদায় নেওয়ার পালা।

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচন সামনে রেখে প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করেছিলেন দলের পরামর্শক হিসেবে। প্রশান্ত কিশোর এই দায়িত্ব নেওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসকে জেতানোর জন্য কাজ শুরু করেন। তিনি মমতাকে নিত্য নতুন পরামর্শ দিয়ে তৃণমূলকে এগিয়ে নেন। মমতার নতুন নতুন প্রকল্পের কথা ঘোষণা করে কার্যত তাঁর জয়ের পথকে প্রশস্ত করেন।

তবে প্রশান্ত কিশোরের এই ভূমিকা মেনে নিতে পারেনি তৃণমূলের একাংশ। প্রশান্ত কিশোরের সমালোচনাও করেন তাঁরা। কারণ, তাঁকে কয়েক কোটি রুপির চুক্তিতে নিয়োগ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর ভাতিজা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তবু দমে থাকেননি প্রশান্ত কিশোর।

নির্বাচনের আগে তিনি বারবার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেছিলেন, তৃণমূলই জিতবে এবার। বিজেপি তিন সংখ্যার অঙ্কে পৌঁছাতে পারবে না। তারা আটকে থাকবে দুই সংখ্যায়। যদি বিজেপি তিন সংখ্যার আসন পায়, তবে তিনি তাঁর নিজের সংস্থা আইপ্যাক ছেড়ে দিয়ে অন্য পেশায় চলে যাবেন।

রোববার ভোটের ফল গণনায় তাঁর কথাই বাস্তবে প্রমাণিত হওয়ার আভাস পাওয়া যাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় ২৯৪টি আসন থাকলেও নির্বাচন চলাকালে দুই প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে সেখানে ভোট স্থগিত হয়। যে ২৯২টি আসনের ভোট গণনা চলছে তার মধ্যে ২১৪টিতেই এগিয়ে আছে তৃণমূল কংগ্রেস, যেখানে তাদের জয়ের জন্য প্রয়োজন ১৪৮টি আসন। অপর দিকে বিজেপি এগিয়ে আছে ৭৭টি আসনে।

বিজ্ঞাপন

এই পরিস্থিতিতে প্রশান্ত কিশোর বলেছেন, ‘এবার আমার কাজ শেষ, এবার বিদায় নেওয়ার পালা। দিদিকে সাহায্য করতে পেরে আমি খুশি। এই জয়ের মধ্যে আমি জানিয়ে রাখি যে আমি আমার এই কাজ ছাড়ছি। আর এই কাজ করতে চাই না। অনেক হয়েছে। সহকর্মীদের হাতে আইপ্যাকের দায়িত্ব তুলে দিয়ে এবার আমি জীবনে অন্য কিছু করতে চাই।’

ভোটকুশলীর পদ থেকে চলে যাওয়ার পর কী করবেন, সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের কোনো জবাব দেননি প্রশান্ত কিশোর। বলেছেন, অন্য কিছু ভাববেন তিনি। তারপরেই সাংবাদিকেরা প্রশ্ন করেন, তবে কি আপনি রাজনীতিতে যোগ দেবেন? এই প্রশ্নেরও জবাব এড়িয়ে গেছেন প্রশান্ত কিশোর। আবার প্রশ্ন আসে, আপনি কি এবার নিজেকে বাংলার রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত করতে চান? তারও জবাব দেননি তিনি। তবে এখানকার রাজনৈতিক দলগুলোকে একজোট হতে বলেছেন।

প্রশান্ত কিশোর একসময় বিহারের সংযুক্ত জনতা দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ছিলেন ওই দলের রাজ্য সহসভাপতিও।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন