default-image

‘করোনাভাইরাস নিয়ে ভয়ের কিছু নেই এবং এ রোগের চিকিৎসাও বেশির ভাগ মানুষের জন্যই খুব সাধারণ’—এমন মন্তব্য করেছেন দিল্লিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তি। ৪৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন এবং চিকিৎসা নিয়ে এখন সুস্থ।

এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, দিল্লির সাফদারজুং হাসপাতালে দুই সপ্তাহ ধরে চিকিৎসা নিয়েছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এই ব্যক্তি। গতকাল রোববার সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন তিনি। চিকিৎসকেরা তাঁকে আরও ১৪ দিনের জন্য বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। করোনা নিয়ে নিজের অভিজ্ঞতা জানান গণমাধ্যমকে। তিনি বলেন, আসলে ভয় পাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। এটি সাধারণ ফ্লুর মতো।

ওই ব্যক্তি বলেন, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ইউরোপ থেকে ভারতে ফেরেন তিনি। ফেরার পরদিনই জ্বর আসে। তিনি চিকিৎসকের কাছে যান। চিকিৎসক জানান, এটি গলার সংক্রমণ। তিন দিনের মতো ওষুধ দেওয়া হয় তাঁকে। ২৮ তারিখ বেশ সুস্থ অনুভব করেন। তবে ২৯ তারিখ আবার জ্বর আসে। এরপর রাম মনোহর লোহিয়া হাসপাতালে যান তিনি। সেখানে টেস্টে তাঁর করোনা ধরা পড়ে। তিনি বলেন, ‘আমি চিকিৎসক নই, তবে অভিজ্ঞতা থেকে বুঝতে পেরেছে এটি সাধারণ ঠান্ডা–কাশির চেয়ে সামান্য ভিন্ন।’

দিল্লিতে এখন পর্যন্ত সাতজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একজন মারা গেছেন। দুজন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

গতকাল পর্যন্ত ভারতে ১১০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সবচেয়ে বেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর খোঁজ পাওয়া গেছে কেরালায়। বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে ছয় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন