default-image

করোনায় সুস্থতার সংখ্যা বাড়ছে পশ্চিমবঙ্গে। এত দিন যুদ্ধ চলেছে সংক্রমণের হারের সঙ্গে সুস্থতার হারের। আর তাতে এগিয়েছিল সংক্রমণের হার। এবার সেই যুদ্ধে বাড়ছে সুস্থতার হার।

গতকাল রোববার রাতে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গে এখন করোনায় সুস্থতার হার ঊর্ধ্বমুখী। আর সংক্রমণের হার কিছুটা নিম্নমুখী। গত দুসপ্তাহের মধ্যে গতকাল রোববার ছিল সবচেয়ে কম সংক্রমণের হার। এ হার ছিল ৮ দশমিক ৯৭ শতাংশ। গতকাল সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৮৭ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৫৩ জন। এর ফলে এই রাজ্যে সুস্থ হওয়া মোট করোনা রোগীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৯৯০ জন। তবে মারা গেছেন এই রাজ্যে এখন পর্যন্ত ৬ হাজার ৯০০ জন।

বিজ্ঞাপন

এখনো এই রাজ্যে করোনার চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৬ হাজার ৭৬১ জন। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর আরও বলেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের। এর মধ্যে কলকাতায় মারা গেছেন ১৬ জন। এখন রাজ্যে সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৮ দশমিক ৪৪ শতাংশ। এখন পর্যন্ত এই রাজ্যে করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪৬ লাখ ৮৮২ জনের। তবে এখনো এই রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতাল, ক্লিনিক, সেফহোম ও নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৬ হাজার ৭৬১ জন।

এখন পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মৃতের সংখ্যার শীর্ষে চলে এসেছে কলকাতার নাম। কলকাতায় এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২ হাজার ২২২ জন আর আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ১৮২ জন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। এই জেলায় মারা গেছেন ১ হাজার ৫৮৯ জন। আর সংক্রমিত হয়েছেন ৭৭ হাজার ১০৯ জন। তৃতীয় স্থানে হাওড়া জেলা। মারা গেছেন ৭৪১ জন আর আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজার ৫৯৩ জন। এরপর দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা। মৃতের সংখ্যা ৪৬৭ জন আর আক্রান্তের সংখ্যা ২৪ হাজার ৯৩৫ জন। পঞ্চম স্থানে রয়েছে হুগলি। এখানে মৃতের সংখ্যা ৩১৯ এবং আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজার ৪৫৫। ষষ্ঠ স্থানে পশ্চিম মেদিনীপুর। মৃতের সংখ্যা ২০৯ আর আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৪৭০ জন এবং সপ্তম স্থানে রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা।

এখানে মৃত্যু হয়েছে ১৯৪ জন আর সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ হাজার ৪৬ জন।
সুস্থতার হার বাড়ছে ভারতেও। ভারতের কেরালা, দিল্লি এবং পশ্চিমবঙ্গে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চললেও অন্যান্য রাজ্যে তা কমের দিকে। ফলে কেন্দ্রীয় সরকার এখনো পশ্চিমবঙ্গ, কেরালা ও দিল্লির করোনার সংক্রমণ নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছে।

ভারতে এখন সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ৫৪ শতাংশ। আর সংক্রমণের হার ৪ দশমিক ৩০ শতাংশ। আর মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬ হাজার ৯৬৩ জন। সব মিলিয়ে ভারতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ লাখ ৮৪ হাজার ৮২ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৭৪ লাখ ৯১ হাজার ৫১৩ জন। এখনো চিকিৎসাধীন ৫ লাখ ৭০ হাজার ৪৫৮ জন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0