শিলিগুড়ির সভায় অমিত শাহ বলেন, করোনা বিদায় নেওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গে সিএএ কার্যকর হবে। তখন বাংলাদেশ থেকে আসা সব নাগরিক ভারতের নাগরিকত্বের সুযোগ পাবেন। অমিত শাহ মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘দিদি আপনিও সিএএ ঠেকাতে পারবেন না। সিএএ নিয়ে আপনারা মিথ্যাচার করছেন। মানুষকে ভুল বুঝিয়েছেন। এবার সময় আসছে সিএএ কার্যকর করার।’

এদিকে অমিত শাহের এই দাবির কড়া সমালোচনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, সিএএ নিয়ে বিজেপি মিথ্যাচার করছে। এই বাংলার সবাই ভারতের নাগরিক। আবার সিএএ কিসের? মানুষতো এই দেশের নাগরিক হিসেবে ভোট দিচ্ছে। মমতা আরও বলেন, সিএএ নিয়ে তোতাপাখির বুলি আওড়াচ্ছেন অমিত শাহ। এই রাজ্যের মানুষ সিএএ মানবেন না।

অমিত শাহের এই মন্তব্যের কড়া নিন্দা করেছে বামদল সিপিএম-ও। সিপিএমের নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেছেন, ‘খুড়োর কল দেখাচ্ছেন অমিত শাহ’।

অন্যদিকে শিলিগুড়ির সভা থেকে বিজেপির নেতারা দাবি তুলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের বঞ্চিত এলাকা উত্তরবঙ্গ। তাই একে আলাদা রাজ্যের মর্যাদা দেওয়া হোক। তারা বলছেন, জম্মু-কাশ্মীর ভেঙে যদি লাদাখ হতে পারে, তবে পশ্চিমবঙ্গ ভেঙে আলাদা উত্তরবঙ্গ রাজ্য হবে না কেন?

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন