default-image

করোনার কারণে কলকাতায় বন্ধ হয়ে থাকা মেট্রোরেল বা পাতালরেল চলাচল আজ সোমবার ১৭৬ দিন পর ফের শুরু হলো। এ বছরের ২২ মার্চ সর্বশেষ চলেছিল কলকাতার এই মেট্রোরেল। করোনা পরিস্থিতি ক্রমে উন্নতি হওয়ায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুরোধে ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ কলকাতার এই মেট্রোরেল নিয়মিত চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়। সেই লক্ষ্যে আজ সকাল আটটায় দমদমের পাশে নোয়াপাড়া এবং নিউ গড়িয়ার কাছে কবি সুভাষ স্টেশন থেকে একযোগে শুরু হয় এই ট্রেন চলাচল।

মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সকাল ৯টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা এবং বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ১০ মিনিট অন্তর অন্তর এই ট্রেন চলবে। আর বাকি সময়ে চলবে ১৫ মিনিট অন্তর। কবি সুভাষ স্টেশন থেকে নোয়াপাড়া পর্যন্ত প্রতিদিন ৫৮টি ট্রেন চলবে। আর নোয়াপাড়া থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত চলবে ৪৯টি।

বিজ্ঞাপন

এদিকে কলকাতার দ্বিতীয় মেট্রোরেল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোরও আজ দরজা খুলে দেওয়া হয়েছে। এই পথে সেবা পাওয়া যাবে সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। এই পথে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো চলবে সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত। তবে এই পথে চলাচলকারী যাত্রীদের স্মার্টকার্ড ব্যবহার করে চলাচল করতে পারবে। এই পথে সেবা মিলবে সোম থেকে শনিবার পর্যন্ত। বন্ধ থাকবে রোববার।

যদিও গতকাল রোববার নিট বা ডাক্তারি জয়েন্ট এনট্রান্স পরীক্ষার জন্য প্রথম চলেছিল কলকাতার এই মেট্রোরেল। সেখানে সাধারণ যাত্রীদের চলার কোনো ব্যবস্থা ছিল না। কেবল নিট পরীক্ষার্থীরাই স্মার্টকার্ডের মাধ্যমে ই-পাস নিয়ে মেট্রোতে চলাচল করতে পেরেছেন। গতকাল রাত ৮টা পর্যন্ত মেট্রোরেলে যাত্রী চলেছে ১ হাজার ৬৪৮ জন। আর তাতে মেট্রোর আয় হয়েছে ৬৮ হাজার ৬৬০ রুপি।

তবে করোনার কারণে এখন মেট্রো চলছে করোনার বিধি মেনে। সামাজিক দূরত্ব মেনে। একটি বগিতে ৫০ জন যাত্রীকে বসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি স্টেশনে স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্মার্টকার্ডের মাধ্যমে ই-টিকিট নিয়ে চড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। ট্রেনে চড়ার ১২ ঘণ্টা আগে নির্দিষ্ট এক ঘণ্টা সময় হাতে নিয়ে টিকিট কাটা যাবে। যদিও কলকাতার আগে দিল্লিসহ ভারতের অন্যান্য রাজ্যের মেট্রো চলাচল শুরু হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0