কলকাতা থেকে কাল আরেক দফা ফিরবেন বাংলাদেশিরা

বিজ্ঞাপন
default-image

পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা থেকে করোনায় আটকে পড়া বাংলাদেশি নাগরিকদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশের একটি ফ্লাইট যাচ্ছে কাল রোববার। একই দিন ভারতের অন্যান্য নগর থেকেও আটকে পড়া বাংলাদেশি নাগরিকেরা ফিরে যাবেন।

করোনার কারণে ভারতজুড়ে জারি করা লকডাউনে বহু বাংলাদেশি আটকে পড়েন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে। তাঁরা বেশির ভাগই কলকাতা, চেন্নাই, মুম্বাই, বেঙ্গালুরু, দিল্লি, ভেলোরসহ বিভিন্ন শহরে আটকে পড়েন। দেশে ফেরার জন্য বারবার তাঁরা আবেদনও করেছেন। কিন্তু লকডাউনের কারণে বাংলাদেশের সঙ্গে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় তাঁরা সে সুযোগ পাননি।

আটকে পড়া এসব বাংলাদেশির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষ বিমানে করে তাঁদের ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ সরকার। এগিয়ে আসে ভারত সরকারও। বাংলাদেশ সরকার গত ২০ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত চেন্নাই থেকে ইউএস-বাংলা বিমানের ৫টি ফ্লাইট এবং ২৪ এপ্রিল দিল্লি থেকে বিমান বাংলাদেশের একটি ফ্লাইটসহ মোট ৬টি ফ্লাইটে ৯৯৬ জন যাত্রীকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে নেয়।

দ্বিতীয় দফায় ১ মে বিমান বাংলাদেশের উড়োজাহাজে কলকাতায় আটকে পড়া ৭৩ জন বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে নেওয়া হয়। সেই লক্ষ্যে গতকাল শুক্রবার দুপুরে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশের যাত্রীদের নিয়ে প্রথম ফ্লাইটটি ঢাকায় যায়। এদিন দুপুরে কলকাতা বিমানবন্দরে কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশের উপহাইকমিশনার তৌফিক হাসান বাংলাদেশের এসব যাত্রীকে বিদায় জানান।

আজ ২ মে বিমান বাংলাদেশের ফ্লাইটে দিল্লি থেকে এবং কাল ৩ মে বিমান বাংলাদেশে মুম্বাই থেকে বাংলাদেশি নাগরিকদের ফিরিয়ে নেওয়া হবে। ৩ মে বিমান বাংলাদেশের আরেকটি ফ্লাইট কলকাতা থেকে ঢাকায় যাবে।

কলকাতার বাংলাদেশ উপহাইকমিশন সূত্রে বলা হয়, আটকে পড়া এসব বাংলাদেশির আবেদনে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশ সরকার বিশেষ ব্যবস্থায় বিভিন্ন বিমানে করে বাংলাদেশে ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেয়। সহযোগিতা করে ভারত সরকার। তবে প্রত্যেক যাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে বিমানে তোলা হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন