বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতের ওই মন্ত্রণালয় এই ভিডিও শেয়ারের মাধ্যমে পানি সংরক্ষণের গুরুত্বের বিষয়ে জোর দিয়েছে। কারণ, বিশ্বে প্রচুর সুপেয় পানির অপচয় হয়। সকালে মুখে ব্রাশ নিয়ে পানির কল ছেড়ে রাখা বা গোসলের সময় পানির কল ছেড়ে গায়ে সাবান মেখে পানি অপচয় করা মানুষের সংখ্যা অগণিত। এসব নানা কারণে সারা বিশ্বে দিন দিন সুপেয় পানির অভাব তীব্র হচ্ছে। বাড়ছে হাহাকার। অনুন্নত বা উন্নয়নশীল দেশগুলোতে মানুষকে পানির দাবিতে তো প্রায়ই আন্দোলন-সংগ্রাম করতে দেখা যায়। তবু মানুষ সচেতন হচ্ছে না।

ভিডিওটি শেয়ার করে মন্ত্রণালয়টি একটি পরিষ্কার বার্তা দিয়েছে, ‘পানি সংরক্ষণ করুন বা প্রকৃতি থেকে সুপেয় পানি পেতে সংগ্রাম করার জন্য প্রস্তুত থাকুন। হাতিটি তার প্রয়োজনের বেশি পানি পাম্প করেনি। মানুষের মতো এটি পানির কল খোলাও রাখেনি।’

ভিডিও–সংবলিত ওই টুইট বার্তায় ভারতের মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, ‘একটি হাতি পর্যন্ত প্রতি ফোঁটা পানির গুরুত্ব বুঝতে পারে। তাহলে আমরা মানুষ কেন পানি অপচয় করি। মানুষের উচিত হাতির কাছ থেকে শিক্ষা নেওয়া ও পানি সংরক্ষণ করা।’

গতকাল পর্যন্ত ভিডিওটি ১৭ হাজারবারের বেশি দেখা হয়।

পৃথিবীর প্রায় ৭০ শতাংশ জলাধার। তবু সুপেয় পানির অভাব। বিশ্বের মাত্র ৩ শতাংশ পানি সুপেয়। এর আবার দুই-তৃতীয়াংশ বরফ, মানে যা ব্যবহারের অনুপযোগী। এদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিভিন্ন জলাশয় শুকিয়ে যাওয়ায় এই সংকট আরও প্রকট হচ্ছে।

ভারতে পরিষ্কার পানি সরবরাহ ও দেশের পানির সমস্যা নির্ণয় করার লক্ষ্যে ২০১৯ সালে জলশক্তি মন্ত্রণালয় গঠন করা হয়েছিল।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন