বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আপনি পার্টির নেতা আলতাফ বুখারি বৃহস্পতিবার শ্রীনগরে সংবাদ সম্মেলন করে পুনর্বিন্যাসের প্রস্তাব নাকচ করে দেন। তিনি বলেন, আসন পুনর্বিন্যাস কমিশন চতুরভাবে জম্মু ও কাশ্মীরের মধ্যে বিভাজন রেখা টানতে চাইছে। তাদের প্রস্তাব কার্যকর হলে সেটা হবে আরও এক কালো অধ্যায়। দেশের একতা ও অখণ্ডতার পক্ষে তা শুভ হবে না। বুখারি আরও বলেন, এই প্রচেষ্টা রুখতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে অবিলম্বে উদ্যোগী হতে হবে।

সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি রঞ্জনা দেশাইয়ের নেতৃত্বাধীন পুনর্বিন্যাস কমিশন প্রস্তাব করেছে, ২০১১ সালের জনগণনার ভিত্তিতে জম্মু-কাশ্মীর বিধানসভার আসন বেড়ে হবে ৯০। এর মধ্যে জম্মুতে থাকবে ৪৩টি, কাশ্মীর উপত্যকায় থাকবে ৪৭টি। প্রস্তাব অনুযায়ী জম্মুতে বাড়বে ৬টি আসন, কাশ্মীরে ১টি। উপত্যকার সব রাজনৈতিক দল এই প্রস্তাবের বিরোধিতায় নেমেছে। আপনি পার্টিও বিরোধিতা করায় বিপাকে পড়েছে কেন্দ্র।

আলতাফ বুখারি উপত্যকার প্রতিষ্ঠিত রাজনৈতিক নেতা। মুফতি মুহম্মদ সৈয়দের সঙ্গে তিনি গড়ে তুলেছিলেন পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি (পিডিপি)। তাঁকে দিয়ে পিডিপি, ন্যাশনাল কনফারেন্স (এনসি) ও কংগ্রেসকে ভাঙিয়ে বিজেপি ২০২০ সালের মার্চ মাসে গড়ে তোলে নতুন রাজনৈতিক দল। নাম হয় জম্মু-কাশ্মীর আপনি পার্টি। জেলা উন্নয়ন পর্ষদের নির্বাচনেও এই নতুন দল অংশ নেয় ও শ্রীনগর পর্ষদ দখল করে। বিজেপির উদ্দেশ্য, আপনি পার্টিকে দিয়ে এনসি ও পিডিপির পরিবারভিত্তিক দলের প্রাধান্য খর্ব করা। কিন্তু পুনর্বিন্যাসকে কেন্দ্র করে এনসি, পিডিপি, সিপিএম ও পিপলস মুভমেন্টের মতো আপনি পার্টিও বিরোধিতায় নামায় এই প্রস্তাব কার্যকর করা সরকারের পক্ষে কঠিন হয়ে উঠছে। শুধু তা-ই নয়, বিজেপির ঘনিষ্ঠ পিপলস কনফারেন্স নেতা সাজ্জাদ লোনও এই প্রস্তাবের বিরোধিতায় নেমেছেন।

এই সার্বিক বিরোধিতার ফলে লড়াইটা হয়ে দাঁড়িয়েছে জম্মু বনাম কাশ্মীরের। অন্যভাবে বলা যায়, হিন্দু বনাম মুসলমানের। গোটা উপত্যকায় এই ধারণা বদ্ধমূল হয়ে গেছে যে জম্মুর আসন বাড়িয়ে হিন্দুপ্রধান দল বিজেপি জম্মু-কাশ্মীরের ক্ষমতা কবজা করতে আগ্রহী। এতকাল জম্মু ও কাশ্মীরের মধ্যে মোট আসনের তারতম্য ছিল ৯টি। মুসলমানপ্রধান উপত্যকার রাজনৈতিক দলের নেতাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রিত্বের দাবিদার হয়ে এসেছেন। আসনের ফারাক কমে যাওয়ায় জম্মুর হিন্দুপ্রধান দল বিজেপির পক্ষে সেই দাবি জানানো সহজ হবে। আপত্তি তাই সর্বজনীন চরিত্র পেয়েছে। পঞ্চদলীয় জোট গুপকর অ্যালায়েন্স আগেই নতুন প্রস্তাব নাকচ করেছে। সেই সুরে সুর মিলিয়েছে আপনি পার্টি ও পিপলস কনফারেন্স।

গোয়েন্দারা কেন্দ্রকে সতর্ক করে জানিয়েছেন, জবরদস্তি পুনর্বিন্যাস প্রস্তাব কার্যকর করা হলে উপত্যকার পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়ে উঠবে। পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি কেন্দ্রকে সতর্ক করে বলেছেন, বিধানসভার আসনসংখ্যাকে কেন্দ্র করে জম্মু-কাশ্মীরের বিভেদের পরিণতি দেশের পক্ষে ভালো হতে পারে না।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন