বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আর বিন্দু আরও বলেন, কেরালার শিক্ষকদের নিজেদের স্বাচ্ছন্দ্য অনুযায়ী পোশাক পরার অধিকার রয়েছে। নারী শিক্ষকদের শাড়ি পরতে বাধ্য করা কেরালার প্রগতিশীলতার পরিপন্থী।

শিক্ষামন্ত্রী আর বিন্দু ত্রিশুরের কেরালা ভার্মা কলেজের অধ্যাপক ছিলেন। তিনি বলেন, একসময় তিনিও নিয়মিত চুড়িদার পরতেন। তিনি বলেন, পোশাক পরা ব্যক্তিগত বিষয়। অন্যের ব্যক্তিগত পছন্দের সমালোচনা বা তাতে হস্তক্ষেপ করার অধিকার কারও নেই।

মন্ত্রী আর বিন্দু আরও বলেন, ২০১৪ সালের ৯ মে শিক্ষকদের শাড়ি পরাসংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল কেরালা সরকার। এর পরও রাজ্যের বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নারীদের শাড়ি পরতে বাধ্য করা হচ্ছে। এ কারণে উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে নতুন একটি বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন