কোচের কাছে ধর্ষণের শিকার শুটার!

ভারতের দিল্লিতে জাতীয় পর্যায়ের একজন শুটার ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই শুটারের অভিযোগ, পানীয়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানোর পর তাঁকে ধর্ষণ করেন কোচ।

পুলিশের বরাত দিয়ে আজ রোববার টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ধর্ষণের শিকার ওই শুটারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর কোচ ও অলিম্পিকে অংশ নেওয়া সাবেক শুটারের বিরুদ্ধে চাণক্যপুরী থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।

নারী শুটারের অভিযোগ, তিনি ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য ওই কোচের কাছে প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন। দুই বছর থেকে তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই কোচ তাঁকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন। সম্প্রতি তাঁর জন্মদিনের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছিল। ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কোচ তাঁর চাণক্যপুরীর বাড়িতে গিয়েছিলেন। এ সময় কোচ তাঁকে পানীয় খেতে দেন। তা খেয়েই অচেতন হয়ে পড়েন শুটার। তখন কোচ তাঁকে ধর্ষণ করেন। শুটারের অভিযোগ, এ ঘটনার পর থেকেই ওই কোচ নির্যাতিত শুটারের ফোন কল ধরা বন্ধ করে দেন। পরে শুটিং রেঞ্জে তিনি একদিন ওই কোচের সঙ্গে দেখা করলে কোচ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন। এর প্রতিবাদ করলে কোচ তাঁকে শুটিং রাইফেল দিয়ে গুলি করে হত্যা করে তা দুর্ঘটনা বলে চালানোর হুমকি দেন। এ ঘটনার পরই ওই শুটার পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।

দিল্লি পুলিশের স্পেশাল কমিশনার এম কে মীনা বলেন, ওই নারী শুটারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।

পুলিশ জানায়, ধর্ষণের শিকার ওই শুটারের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য তাঁকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গতকাল শনিবার অভিযুক্ত ওই কোচের সঙ্গে যোগাযোগ করে তদন্তে সহযোগিতা করার কথা বলা হয়েছে।

এনডিটিভি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ওই কোচকে বহিষ্কার করা হয়নি। এমনকি তাঁকে গ্রেপ্তারও করা হয়নি।