default-image

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানের খাগড়াগড় বিস্ফোরণ মামলায় জেএমবির আরও চার জঙ্গি আদালতে তাঁদের দোষ স্বীকার করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

কলকাতার দায়রা আদালতের বিশেষ এনআইএ আদালতে ওই চার জঙ্গি গতকাল দোষ স্বীকার করার আবেদন জানান। চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে চার জঙ্গির করা আবেদনের ওপর শুনানি হবে।

চার জঙ্গি হলেন মহম্মদ ইউনিস, মতিউর রহমান, জিয়াউল হক ও জহিরুল শেক। বর্তমানে তাঁরা কলকাতার প্রেসিডেন্সি কারাগারে আছেন।

বিজ্ঞাপন

মামলার মোট আসামি ৩৪ জন। তাঁদের মধ্যে ২৬ জন আগেই আদালতে দোষ স্বীকার করেন। দোষ স্বীকারের পর আদালত জেএমবির এই জঙ্গিদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেন।

এখন জেএমবির আরও ৪ জঙ্গি আদালতে দোষ স্বীকারের জন্য আবেদন জানালেন।
বাকি চার আসামির মধ্যে তিনজন কারাগারে রয়েছেন। একজন পলাতক। তাঁর নাম সালাউদ্দিন সালেহান। তিনি জেএমবির আন্তর্জাতিক শাখার প্রধান।

মামলার তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ ইতিমধ্যে পলাতক এক জঙ্গি বাদে বাকি ৩৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে।

এনআইএর কর্মকর্তারা বলছেন, পলাতক সালাউদ্দিন ধরা পড়লে তাঁর বিরুদ্ধে সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করে তাঁকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

২০১৪ সালের ২ অক্টোবর পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান শহরের উপকণ্ঠে খাগড়াগড়ের একটি ভাড়া বাড়িতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলে জেএমবির দুই জঙ্গি নিহত হন। আহত হন তিনজন। পরে প্রকাশ পায় বাড়িটি ছিল জেএমবির পশ্চিমবঙ্গের ঘাঁটি। সেখানে তৈরি হতো গ্রেনেড, বোমা।

বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্তভার পায় ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনআইএ)। মামলার বিচার চলছে কলকাতার নগর ও দায়রা আদালতের বিশেষ এনআইএ আদালতের বিচারক প্রসেনজিৎ বিশ্বাসের এজলাসে।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন