বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কর ফাঁকির অভিযোগে উত্তর প্রদেশের কানপুরের সুগন্ধি ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত রোববার তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল সোমবার কানপুরের আদালত তাঁকে ১৪ দিন পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

পীযূষ পানমসলা প্রস্তুতকারকদের সুগন্ধি সরবরাহ করেন। তিনি স্কুটারে চলাচল করলেও তাঁর বাড়ি ও অফিসে বিপুল অর্থসম্পদ পাওয়া যায়।

জিএসটি গোয়েন্দাদের তথ্য অনুযায়ী, পীযূষের কানপুরের বাসায় ১৭৭ কোটি রুপি পাওয়া গেছে। আর তাঁর কনৌজের কারখানায় পাওয়া গেছে ১৭ কোটি রুপি।

ভারতে জিএসটি গোয়েন্দাদের অভিযানে এককভাবে এত নগদ অর্থ আগে কখনো উদ্ধার হয়নি।

অভিযানে ২৩ কেজি সোনা উদ্ধার করা হয়েছে, যার মূল্য প্রায় ১১ কোটি রুপি। উদ্ধার হওয়া বেশির ভাগ সোনায় বিদেশি চিহ্ন রয়েছে।

ব্যবসায়ীর কারখানার একটি ভূগর্ভস্থ স্টোরে চন্দন কাঠের ৬০০ কেজি তেল পাওয়া গেছে, যার বাজারমূল্য ৬ কোটি রুপি।

পীযূষের দুবাইয়ে সম্পত্তি আছে। এই সম্পত্তির নথিপত্র অভিযানে উদ্ধার হয়েছে।

অভিযানের শুরুর দিকে পীযূষ পালিয়ে গিয়েছিলেন। পরে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন