default-image

লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) উত্তেজনা সৃষ্টির দায় পুরোপুরি চীনের ওপর চাপিয়ে ভারতের প্রতিরক্ষাপ্রধান (সিডিএস) বিপিন রাওয়াত বললেন, চীনকে স্থিতাবস্থা ফেরাতেই হবে। বড়সড় সংঘর্ষের সম্ভাবনা উড়িয়ে না দিয়ে তিনি বলেন, এলএসিতে কোনো ধরনের পরিবর্তন ভারত মেনে নেবে না।

বিপিন রাওয়াত এই হুঁশিয়ারি দেন শুক্রবার ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ আয়োজিত এক আলোচনা সভায়। তিনি বলেন, সব দিক খতিয়ে দেখে বলা যায়, চীনের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধের সম্ভাবনা কম। কিন্তু সীমান্ত লঙ্ঘন, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় অবস্থানের পরিবর্তন, প্ররোচনা না থাকা সত্ত্বেও অকারণে সামরিক উৎপাত বড় ধরনের সংঘাতের সৃষ্টি করতে পারে। সেই সম্ভাবনা বাতিল করে দেওয়া যায় না।

বিপিন রাওয়াত যখন এই কথা বলছেন, তখন সীমান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ভারত ও চীনের মধ্যে সামরিক স্তরে অষ্টম পর্যায়ের আলোচনা শুরু হয়েছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় এলাকায় চুসুল–মলডোতে ওই আলোচনায় ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল পি জি কে মেনন। আগের সাত দফার আলোচনা সত্ত্বেও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর দুই দেশের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে। গত জুন মাসের আগের অবস্থানে চীন ফিরে যেতে এখনো নারাজ। ভারতও প্যাংগং লেকের দক্ষিণ অংশের অবস্থান ছাড়তে রাজি নয়। বস্তুত, ভারতের মনোভাব কতটা কড়া, বৈঠক চলাকালে রাওয়াত সে কথা চীনকে আরও একবার মনে করিয়ে দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

সীমান্ত উত্তেজনার জন্য রাওয়াত চীন–পাকিস্তান যোগসাজশকেও দায়ী করেছেন। এই দুই পরমাণু শক্তিধর দেশ এক চিরকালীন আঞ্চলিক বিপদের আবহ গড়ে তুলেছে জানিয়ে তিনি বলেন, পূর্ব লাদাখে ভারতীয় সেনাদের কঠোর–কঠিন প্রতিরোধ চীন আঁচ করতে পারেনি। রাওয়াত আরও বলেন, ভারতের মনোভাবে কোনো ধোঁয়াশা নেই। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় বিন্দুমাত্র বদল ভারত সহ্য করবে না।

মন্তব্য পড়ুন 0