ছিটমহল ফেরত ৫৮ পরিবার পেল পাকা ঘর

বিজ্ঞাপন
default-image

পাঁচ বছর আগে ছিটমহল থেকে ভারতে ফেরত ৫৮টি পরিবার পেয়েছে স্থায়ী বাসভবন। রোববার ও সোমবার পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার দিনহাটায় তাদের দ্বিতল পাকা ভবনে স্থানান্তর করা হয়। এর আগে দিনহাটারই একটি এলাকায় টিনের গৃহে তাদের অস্থায়ীভাবে রাখা হয়েছিল।

দীর্ঘ ৬৮ বছর পর ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই রাতে বাংলাদেশ ও ভারতে মধ্যে ঐতিহাসিক ছিটমহল বিনিময় হয়। এর মধ্য দিয়ে দুই দেশ থেকে ছিটমহলের বিলুপ্তি ঘটে। ভারতের অভ্যন্তরে ছিল বাংলাদেশের ৫১টি ভূখণ্ড (ছিটমহল হিসেবে পরিচিত) আর বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ছিল ভারতের ১১১টি ভূখণ্ড।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৫ সালের হিসাব অনুযায়ী ভারতের অভ্যন্তরে ছিল বাংলাদেশের ১৪ হাজার ২১৪ জন বাসিন্দা। আর বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ছিলেন ৩৭ হাজার ৩৬৯ জন ভারতীয়। ছিটমহল বিনিময় হওয়ার পর বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ছিটমহলবাসীকে ঠাঁই দেওয়া হয় কোচবিহার জেলার হলদিবাড়ি, মেখলিগঞ্জ এবং দিনহাটার অস্থায়ী শিবিরে। পরে পর্যায়ক্রমে এসব মানুষকে পুনর্বাসন দেওয়া হয় ওই তিন এলাকায় টিনের ঘর তৈরি করে। তাঁদের দেওয়া হয় ভারতীয় ভোটার কার্ড, আধার কার্ড ও রেশন কার্ডও। তবে এবার দিনহাটার অস্থায়ী শিবিরের এই ৫৮ পরিবারকে পাকা বসতঘর দেওয়া হয়।

পাকা ভবন পাওয়া ব্যক্তিদের একজন ওসমান গনি। মঙ্গলবার দুপুরে প্রথম আলোকে তিনি বলেন, যদিও তাঁদের স্থায়ী বসতবাড়ি দেওয়া হয়েছে কিন্তু তাঁরা ওই বাড়ির দলিল পাননি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন