default-image

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বিধানসভার ২৯৪ আসনের নির্বাচন আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। আর বিধানসভার এই নির্বাচন ঘিরে ইতিমধ্যে রাজ্যজুড়ে বিজেপি, তৃণমূল কংগ্রেস, জাতীয় কংগ্রেস ও বাম দল মাঠে নেমে পড়েছে। যদিও এখনো রাজ্যব্যাপী লড়াই চলছে করোনার বিরুদ্ধে; করোনাকে হটানোর জন্য।

সমীক্ষা সংস্থা সিএনএক্স ও এবিপি-আনন্দ এই বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে আগাম এক জনমত সমীক্ষা চালিয়েছে। সমীক্ষার ফলাফলে বলা হয়েছে, এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার নির্বাচন হলে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় যেতে পারে। তবে তৃণমূলকে প্রচণ্ড লড়াই করে জিততে হবে। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হবে বিজেপি।

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বিধানসভায় এখন ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল। ২০১৬ সালের সর্বশেষ বিধানসভা নির্বাচনে ২৯৪ আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছিল ২১১টি আসন। বিজেপি ৩টি, জাতীয় কংগ্রেস ৪৪টি এবং বাম দলগুলো ৩২টি আসন পায়।

আজ বুধবার বিকেলে আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত সমীক্ষা রিপোর্টে বলা হয়েছে, এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে মমতার তৃণমূল কংগ্রেস ১৫৫ থেকে ১৬৩ আসন পেতে পারে। সরকার গড়তে প্রয়োজন ১৪৮টি আসন। আর বিজেপি পেতে পারে ৯৭ থেকে ১০৫টি আসন। অন্যদিকে বাম-কংগ্রেস জোট পেতে পারে ২২ থেকে ৩০টি আসন।

আর শতাংশের হিসাবে তৃণমূলের ঝুলিতে যেতে পারে ৩৮ দশমিক ৫০ শতাংশ ভোট। আর বিজেপির থলিতে যেতে পারে ৩২ দশমিক ৭৪ শতাংশ ভোট। সমীক্ষায় ৯ দশমিক ৯৩ শতাংশ উত্তরদাতা কাকে ভোট দেবেন, তা জানাননি। তবে ওই ৯ দশমিক ৯৩ শতাংশ ভোটার যদি তৃণমূলের দিকে ঝোঁকেন, তবে তৃণমূল আরও বেশি আসনে জিতবে। আর বিজেপির দিকে ঝুঁকলে বিজেপির ভাগ্যও খুলে যেতে পারে। আর এর একটা অংশ বাম ও কংগ্রেস জোটের দিকে ঝুঁকলে বাম-কংগ্রেস জোটের আসন বাড়বে। তবে সমীক্ষাকালে এক প্রশ্নের জবাবে ৬১ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, লকডাউন করে করোনা সংক্রমণ রুখতে ব্যর্থ হয়েছে মোদি সরকার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0