বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতে এ পর্যন্ত দেওয়া ১৩০ কোটি ডোজ টিকার ৯০ শতাংশই সেরামের উৎপাদিত কোভিশিল্ড। গত জানুয়ারিতে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয় ভারতে। এরপর দেশটির প্রাপ্তবয়স্ক অর্ধেক মানুষ পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছেন।

আদর পুনেওয়ালা বলেন, ‘আমি এমন এক ধন্দে পড়েছি, যেটা কখনো কল্পনা করিনি। মাসে কোভিশিল্ডের ২৫ কোটি ডোজ টিকা উৎপাদন করছি। তবে সুসংবাদ হলো ভারতের বেশির ভাগ মানুষ টিকা পেয়েছেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের যে ক্রয়াদেশ দেওয়া হয়েছিল, আর এক সপ্তাহের মধ্যেই তা পূরণ হয়ে যাবে।’

সিএনবিসি-টিভি১৮–কে পুনেওয়ালা বলেন, ‘আমাদের হাতে আর কোনো ক্রয়াদেশ নেই। তাই ভারত ও বাকি বিশ্ব থেকে ক্রয়াদেশ না আসা পর্যন্ত আমি মাসিক ভিত্তিতে টিকার উৎপাদন অন্তত ৫০ শতাংশ কমিয়ে আনতে যাচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘কোভ্যাক্স (টিকা বণ্টনের বৈশ্বিক উদ্যোগ) ক্রয়াদেশ দিচ্ছে, তবে তা খুবই ধীর। বছরের প্রথম তিন মাস শেষ হওয়ার পর হয়তো তা বাড়বে।’

এদিকে ৮৫ শতাংশ ভারতীয় এক ডোজ করোনার টিকা নিয়েছেন। দেশটির আরও কয়েক কোটি মানুষ করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেবেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন