ডাল লেকে শিকারায় (নৌকা) জমে থাকা বরফ পরিষ্কার করছেন এক ব্যক্তি। ৪ জানুয়ারি
ডাল লেকে শিকারায় (নৌকা) জমে থাকা বরফ পরিষ্কার করছেন এক ব্যক্তি। ৪ জানুয়ারিছবি: রয়টার্স

৩০ বছরের মধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার ভারতের কাশ্মীরের শ্রীনগরে ছিল সবচেয়ে ঠান্ডার রাত। গতকাল সেখানকার তাপমাত্রা ছিল হিমাঙ্কের ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। বরফ হয়ে গেছে সেখানকার বিখ্যাত ডাল লেকের পানি।

এনডিটিভির এক খবরে বলা হয়, ১৯৯১ সালে সেখানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা হয়েছিল হিমাঙ্কের ১১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। আর ১৯৯৫ সালে হয়েছিল হিমাঙ্কের ১১ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।

আবহাওয়া দপ্তরের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত শ্রীনগরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয় ১৯৮৩ সালে। তা ছিল হিমাঙ্কের ১৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।  
শুধু শ্রীনগরই নয়, পুরো উপত্যকাই তুষারপাতে জমে গেছে। তীর্থস্থান হিসেবে পরিচিত পেহেলগামেও গতকাল তাপমাত্রা ছিল হিমাঙ্কের ১১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। আগের রাতে তা ছিল হিমাঙ্কের ১১ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।  

বিজ্ঞাপন
default-image

পর্যটককেন্দ্র গুলমার্গে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল হিমাঙ্কের ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। আগের রাতে তা ছিল আরও তিন ডিগ্রি নিচে।

উপত্যকায় প্রবেশশহর কাজিগুন্দে ছিল সর্বনিম্ন ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। উত্তর কাশ্মীরে কুপওয়ারাতে তাপমাত্রা ছিল হিমাঙ্কের ৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে।

পুরো উপত্যকাতেই পাইপের পানি জমে গেছে। শহরের বিভিন্ন সড়কে বরফের ভারী স্তর পড়েছে। এতে যানবাহন চলাচলে ব্যাঘাত ঘটছে।

default-image

কাশ্মীর এখন ‘চিলাই কালান’–এর কবলে। এখানে শীতকালে সবচেয়ে বেশি ঠান্ডা যখন থাকে, সে সময়ের ৪০ দিনকে চিলাই কালান বলে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন