বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সমৃদ্ধি সাকুনিয়ার টুইটের জেরে মামলা করা হয় বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে ত্রিপুরা পুলিশ। ত্রিপুরায় সংখ্যালঘু মুসলমানদের ওপর সাম্প্রতিক সহিংসতার ঘটনা ঘটে।
গত অক্টোবরের মাঝামাঝি থেকে এক সপ্তাহ ধরে চলা সহিংসতায় বহু মানুষ তাদের ঘরবাড়ি হারিয়েছে, বেশ কিছু মসজিদে হামলা চালানো হয়েছে। সমৃদ্ধি সাকুনিয়া তাঁর ওই টুইটে এসব কথা তুলে ধরেন।

পুলিশ বলছে, সমৃদ্ধি সাকুনিয়ার অভিযোগের প্রমাণ তারা পায়নি। এ নিয়ে জানার জন্য দুই সাংবাদিককে আগরতলায় আসতে বলা হয়। পরে যখন জানা যায় যে তাঁরা রাজ্য ছেড়ে চলে যাচ্ছেন, তখন তাঁদের আটক করা হয়।

দুই সাংবাদিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিমানবন্দর যাওয়ার পথে আটক করা হয় তাঁদের। নিলামবাজার পুলিশ স্টেশনে সাড়ে তিন ঘণ্টা বসিয়ে রাখার পর ত্রিপুরা পুলিশের একটি দল এসে তাঁদের নিয়ে যায় বলে জানিয়েছেন ওই দুই নারী সাংবাদিক। তাঁরা বলেন, ‘আমাদের আইনজীবী আসছেন জানিয়ে আমরা তাদের (পুলিশ) অপেক্ষা করতে বলি। কিন্তু তারা চিৎকার করে বলে কেউ এখানে আসবে না। আটক করার আদেশও আমাদের দেখায়নি পুলিশ।’

আজ সোমবার সকালে পুলিশ তাঁদের ভয়ভীতি দেখিয়েছে। দুই সাংবাদিক বলেন, তাঁরা এখন হোটেলবন্দী। হোটেল ছেড়ে আগরতলায় যেতে দেওয়া হচ্ছে না।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, পুলিশের একটি দল দুই সাংবাদিককে নোটিশ দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২১ নভেম্বর ডেকে পাঠিয়েছে।

এদিকে ঘটনার নিন্দা জানিয়ে শিগগিরই দুই সাংবাদিককে মুক্তি ও তাঁদের অবাধ চলাফেরার স্বাধীনতা ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে এডিটরস গিল্ড অব ইন্ডিয়া।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন