পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে ভোট গণনা চলছে। আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত ২৯৪ আসনের মধ্যে ২৯২টি আসনের আনুমানিক ফল ঘোষণা করেছে এনডিটিভি। এতে ২০৬টি আসনে এগিয়ে আছে তৃণমূল কংগ্রেস। পঞ্চম রাউন্ড পর্যন্ত নন্দীগ্রাম আসনে পিছিয়ে ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর বলছে, ১৫তম রাউন্ডে এসে প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর চেয়ে আট হাজার ভোটে এগিয়ে গেছেন মমতা।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও রাজনৈতিক দলের নেতারা।

বিজ্ঞাপন

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল টুইটে মমতাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, ‘এই জয়ের জন্য অভিনন্দন। কী অসাধারণ লড়াই! পশ্চিমবঙ্গের মানুষকেও আমার শুভেচ্ছা।’

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে জানা যায়, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) প্রধান শরদ পাওয়ার বলেছেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই অসাধারণ জয়ের জন্য অভিনন্দন। আশা করি, আমরা একসঙ্গে মানুষের কল্যাণে ও অতিমারি নিয়ন্ত্রণে কাজ করব।’

সমাজবাদী দলের প্রধান অখিলেশ যাদবও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি টুইটে বলেন, একজন নারীকে বিজেপি যেভাবে ‘দিদি, ও দিদি’ বলে কটাক্ষ করছিল, তার যোগ্য জবাব দিয়েছে বাংলার জনগণ। হ্যাশট্যাগে তিনি লিখেছেন ‘দিদি, জিও দিদি’।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে জানা যায়, রাজ্যের মন্ত্রী ও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, ‘কোনো দুশ্চিন্তা নেই আমার। টেনশন লেনে কা নহি, দেনে কা হ্যায়। মানুষের জন্য কাজ করেছি। আমি নিজেকে “ফর দ্য পিপল, বাই দ্য পিপল, টু দ্য পিপল” বলে মনে করি। মানুষ বিবেচনা করে মতামত দিয়েছেন।’

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর বলছে, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ওমর আবদুল্লাহ মমতাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বিজেপি ও নির্বাচন কমিশনের বিরোধিতা সত্ত্বেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লড়াই করে জয়ী হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন