default-image

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে উত্তেজনা এখন তুঙ্গে। প্রচারের মাঠে চলছে তুমুল কথার লড়াই। বুধবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে নির্বাচনী জনসভায় অংশ নেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এখানে তিনি রাজ্যের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধলেন বাক্যবাণে। এই সময় মোদি বলেন, ‘দিদির খেলা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এবার। তাঁর খেলা বুঝে ফেলেছে ছোট্ট শিশুরাও। দিদির সময় শেষ হয়ে এসেছে। ২ মে বিদায় নিতে হবে। তাঁর জন্য দরজা খুলে রাখা হয়েছে।’

এবারের নির্বাচনী প্রচারে বিজেপিকে ‘বহিরাগত’ তকমা দিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন মমতা। আজকের জনসভায় এর তীব্র সমালোচনা করে মোদি বলেন, ‘দিদি এখন দিগভ্রান্ত হয়ে বহিরাগত প্রশ্ন তুলে নির্বাচনী ময়দান গরম করছেন। দিদিকে বলতে চাই, এখানে সবাই ভারতবাসী। ভারতের নাগরিক। ভারত সন্তান। কেউ বহিরাগত নয়।’

পশ্চিমবঙ্গে দুই মেয়াদের তৃণমূল শাসনের সমালোচনা করে মোদি আরও বলেন, ‘তৃণমূলের পাপের ঘড়া ভরে গেছে। এবার শেষ হয়ে যাচ্ছে দিদির খেলা। শেষ হয়ে যাচ্ছে দিদির তোলাবাজি, চাঁদাবাজি, সিন্ডিকেটের রাজনীতির খেলা। এবার এখানে শুরু হবে উন্নয়ন। দিদির কুশাসনের বিরুদ্ধে বিজেপির হাত ধরে বাংলায় শান্তি ফিরিয়ে আনার কাজ।’

বিজ্ঞাপন

মমতার সমালোচনা করে মোদি বলেন, ‘এত দিন দিদি মানুষের কাছে আসতে পারেননি। এটা বুঝতে পেরে দুয়ারে সরকার প্রকল্প চালু করে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছেন। কিন্তু এতেও কাজ হবে না। দিদির সময় শেষ। এই রাজ্যে ক্ষমতায় আসছে বিজেপি।’

মমতার রাজ্য সরকারের দুর্নীতির অভিযোগ সামনে এনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আম্পানের কোটি কোটি টাকা কোথায় গেল? সেটা চলে গেছে ভাইপোর কোম্পানিতে। ক্ষমতায় এসে তা খুঁজে বের করবে বিজেপির নতুন সরকার। তাইতো এবার বাংলা থেকে দিদি যাচ্ছেন, আসল পরিবর্তন আসছে।’

মোদি অভিযোগ করে বলেন, ‘১০ বছরে এই রাজ্যে একটিও শিল্প হয়নি। কর্মসংস্থান হয়নি। বেকারত্ব বেড়েছে। তাই রাজ্যব্যাপী আওয়াজ উঠেছে, এবার বাংলায় দরকার বিজেপি সরকার।’

এই সময় মমতার উদ্দেশে মোদি বলেন, ‘যেই নন্দীগ্রাম আপনাকে ক্ষমতার আসনে বসিয়েছিল, সেই নন্দীগ্রামকে আপনি বারবার অপমান করছেন। একটার পর একটা মিথ্যে বলছেন। ভারতবর্ষকে অপমান করছেন। এবার নন্দীগ্রামের মানুষ সেই অপমানের জবাব দেবে।’

মমতার ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে কটাক্ষ করে এই সময় মোদি আরও বলেন, ‘আপনি খেলা খেলেন। আমরা খেলা করব না। আমরা সেবা করব। আমাদের একটাই মন্ত্র, গরিবের উন্নয়ন, গরিবের বাড়ি, গরিবের সম্মান। তাইতো বলি দিদি, বাংলার মানুষ আপনার খেলা বুঝে গেছে। আর নয়। এবার বিজেপি।’

পশ্চিমবঙ্গের এবারের বিধানসভা নির্বাচনে সবচেয়ে আলোচিত আসন পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম। এই আসনে এবার লড়ছেন মমতা নিজেই। প্রতিপক্ষ বিজেপির শুভেন্দু অধিকারী। একসময় শুভেন্দু মুখ্যমন্ত্রী মমতার সার্বক্ষণিক সঙ্গী ছিলেন। সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে গেছেন তিনি।

এক দশক আগে নন্দীগ্রাম আন্দোলন মমতাকে জননেত্রী থেকে মুখ্যমন্ত্রী বানাতে ভূমিকা রেখেছিল। তিন দশকের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রী হন। এবার পরিস্থিতি বদলেছে। তাই নন্দীগ্রামে মমতা-শুভেন্দুর লড়াই দেখতে মুখিয়ে আছেন সবাই। আলোচিত এ আসনে মমতার বিরুদ্ধে শুভেন্দুকে এগিয়ে রাখতেই নির্বাচনী জনসভার জন্য পূর্ব মেদিনীপুরকে বেছে নিয়েছেন মোদি।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন