বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হেমন্ত নাগরালে জানিয়েছেন, ধর্ষণের শিকার ওই ৩০ বছর বয়সী নারী এক বিশিষ্ট সমাজের হওয়ায় এসসি-এসটি অ্যাট্রোসিটি অ্যাক্ট জারি করা হয়েছে। গ্রেপ্তার মোহনকে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে রাখা হবে। মোহন অপরাধ স্বীকার করেছেন। তাঁর কাছ থেকে অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন, ওই নারীর সারা শরীরে আঘাতের একাধিক চিহ্ন ছিল। আর প্রাথমিকভাবে এটাই মৃত্যুর কারণ বলে জানানো হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সব সাক্ষ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করেছে। এখন মুম্বাই পুলিশ ডিএনএ রিপোর্টের অপেক্ষায় আছে। অভিযোগপত্র জমা দেওয়ার প্রসঙ্গে হেমন্ত নাগরালে জানিয়েছেন, এক মাসের মধ্যে তাঁরা অভিযোগপত্র দাখিল করবেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন