default-image

আবারও নির্ভয়া–কাণ্ডের ছায়া নেমে এসেছে ভারতে। ২০১২ সালে চলন্ত বাসে ঘটা ওই ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের পর জনরোষের মুখে আইন পরিবর্তন করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। ধারণা করা হয়েছিল, এরপর হয়তো এ ধরনের অপরাধ কমবে। কিন্তু থেমে নেই বীভৎসতা। গত বুধবার রাতে তেলেঙ্গানার রাজধানী হায়দরাবাদে ২৬ বছরের এক তরুণী পশুচিকিৎসককে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। ঘটনার বীভৎসতায় গোটা ভারত ফুঁসে উঠেছে বিক্ষোভ–প্রতিবাদে। এর মধ্যেই গত রোববার রাজস্থানে এক স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ছয় বছর বয়সী ওই শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

হায়দরাবাদের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চারজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে ভারতজুড়ে তৈরি হওয়া বিক্ষোভের ঢেউ গতকাল সোমবার আছড়ে পড়ে ভারতের সংসদ ভবনেও। এদিন তেলেঙ্গানার ওই তরুণীর ধর্ষকদের পিটিয়ে মেরে ফেলা উচিত বলে মন্তব্য করেন সমাজবাদী পার্টির সদস্য জয়া বচ্চন। ভারতের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় গতকাল নিজের এই কঠোর মনোভাবের কথা জানিয়ে কান্নাভেজা গলায় তিনি বলেন, ‘মানুষ চায়, সরকার অপরাধীদের মুখের ওপর জবাব দিক। ওদের প্রকাশ্যে নিয়ে এসে পিটিয়ে মেরে ফেলা উচিত।’

শুধু রাজ্যসভাই নয়, ভারতীয় পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভায়ও হায়দরাবাদের ঘটনা নিয়ে আলোচনা হয়। উভয় কক্ষেই দলমত-নির্বিশেষে সবাই দোষীদের দ্রুত কঠোর শাস্তির দাবি করেন। এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে লোকসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। স্পিকার ওম বিড়লার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘পার্লামেন্টের সদস্যদের মনোভাব বুঝে আপনি যে নির্দেশ দেবেন, সরকার তা–ই মানবে। সে জন্য আইন সংশোধনের প্রয়োজন হলেও সরকার প্রস্তুত।’ রাজনাথ সিং মেনে নেন, নির্ভয়া–কাণ্ডের পর আইন আরও কঠোর করা হয়। তারপরও এ ধরনের বীভৎসতা থেমে নেই।

>

ধর্ষণের পর হত্যা
তেলেঙ্গানায় তরুণী পশুচিকিৎসককে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে হত্যার পর হায়দরাবাদে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার

রাজ্যসভায় জয়া বচ্চন বলেন, ‘কতবার যে এ নিয়ে বলেছি, নিজেই জানি না। জানি না আরও কতবার এ ধরনের ঘটনার নিন্দা করতে হবে। নির্ভয়া–কাণ্ডের পরও এমন মারাত্মক ঘটনা রাজ্যে রাজ্যে ঘটে যাচ্ছে। মানুষ সরকারের মুখের দিকে তাকিয়ে আছে। কিন্তু কী করছে সরকার? নির্যাতিতারা কি সুবিচার পাচ্ছে?’

লোকসভা ও রাজ্যসভা দুই কক্ষেই বিভিন্ন সদস্য আইনের যথার্থতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। আরজেডি সদস্য মনোজ ঝা, বিজেপি সদস্য আর কে সিনহা কিংবা বিজেডি সদস্য পিনাকী মিশ্র সরাসরিই বলেন, ২০১২ সালে নির্ভয়া–কাণ্ড ঘটেছিল। অপরাধীদের মৃত্যুদণ্ড হয়। অথচ আজও তাদের ফাঁসিতে ঝোলানো হয়নি। পিনাকী মিশ্র বলেন, এমন আইন হওয়া উচিত, যাতে এ ধরনের ঘটনায় ছয় মাসের মধ্যে দোষীরা সর্বোচ্চ সাজা পায়।

সবশেষ সরকারি হিসাব অনুযায়ী, ভারতে ২০১৭ সালে ৩৩ হাজারের বেশি নারী ও শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ভুক্তভোগীদের মধ্যে ১০ হাজারের বেশিই ছিল শিশু।

এদিকে হায়দরাবাদে তরুণী পশুচিকিৎসককে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ চলার মধ্যেই রোববার রাজস্থানের পুলিশ ওই স্কুলছাত্রীর অর্ধনগ্ন লাশ উদ্ধার করেছে। এই ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের খবর যেন চলমান বিক্ষোভে ঘি ঢেলেছে। গতকাল নয়াদিল্লি, হায়দরাবাদ, বেঙ্গালুরু, কলকাতাসহ বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। অপরাধীদের বিচার এবং নারী–শিশুদের নিরাপত্তার দাবি–সংবলিত বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে ‘বিচার চাই, বিচার চাই’ স্লোগান দেন বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের অনেকের মুখই ছিল কালো কাপড়ে ঢাকা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন