বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোনিয়া এই অবসরে শাসক দলকে আক্রমণ করতেও ছাড়েননি। বিজেপির নামোচ্চারণ না করে তিনি বলেন, তারা বিভাজন ও কুসংস্কারের রাজনীতিতে নিমজ্জিত। স্বাধীনতাসংগ্রামে তাদের কোনো ভূমিকা কখনো ছিল না। আজ তারাই দেশের ধর্মনিরপেক্ষতার ওপর চরম আঘাত হানছে।

সোনিয়া বলেন, যে ভূমিকায় তাদের কখনো দেখা যায়নি, সেই মান্যতা আদায়ে তারা আজ ইতিহাসের বিনির্মাণ ঘটাচ্ছে। নতুনভাবে ইতিহাস রচনার চেষ্টা করছে। সংসদীয় গণতন্ত্র এ দেশের সম্পদ। তারা তা ইচ্ছাকৃতভাবে ছারখার করে দিচ্ছে। এই ধ্বংসাত্মক শক্তিকে প্রতিহত করাই কংগ্রেসের সংকল্প।

সোনিয়া বলেন, ‘আমাদের দৃঢ় সংকল্পের ওপর বিন্দুমাত্র সন্দেহের অবকাশ নেই। মৌলিক বিশ্বাসের সঙ্গে দল কখনো সমঝোতা করেনি। করবেও না। এই মৌলিকতাই আমাদের গৌরবগাথা।’

সকাল থেকেই রাজধানী দিল্লি মেঘময়। প্রবল ঠান্ডার সঙ্গে কখনো কখনো ঝিরঝিরে বৃষ্টি, তা উপেক্ষা করেই আকবর রোডে দলীয় সদর দপ্তরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাহুল, প্রিয়াঙ্কা, মল্লিকার্জুন খাড়গেসহ বহু নেতা ও সেবাদল কর্মী। পতাকা উত্তোলনের সময় বিপাকে পড়েন সবাই। দড়ি ছিঁড়ে দণ্ড থেকে পতাকাটি নিচে পড়ে যায়। সেটি পুনরায় দণ্ডে স্থাপন করার সব চেষ্টা বিফল হয়। শীর্ষ নেতারা তখন পতাকাটি খুলে মেলে ধরেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন