default-image

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় গণহত্যা দিবস পালিত হলো। এই উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভার সুচিন্তিত মতামত হলো, একাত্তরের গণহত্যার অপরাধীদের বিচার হওয়া যেমন জরুরি তেমনই জাতিসংঘের উচিত ২৫ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া।

বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী এই অনুষ্ঠানে বলেন, গত তিন বছর ধরে এই দাবি বাংলাদেশের সরকার জোরালোভাবে জানিয়ে আসছে। আন্তর্জাতিক স্তরে জনমত গড়ে তোলার চেষ্টা করছে। এই প্রচেষ্টা থেকে সরকার বিরত হবে না।

আলোচনাসভা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ হাইকমিশনের মিনিস্টার প্রেস ফরিদ হোসেন। তাতে অংশ নেন দিল্লি ও কলকাতা থেকে প্রকাশিত ইংরেজি দৈনিক ‘মিলেনিয়াম পোস্ট’ এর সম্পাদক দুর্বার গাঙ্গুলি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার সহকারী রাজনৈতিক সম্পাদক মহুয়া চ্যাটার্জি। তাঁরা বলেন, আটচল্লিশ বছর আগে মানবতার বিরুদ্ধে যে অপরাধ পাকিস্তান করেছিল, তার সুবিচার না হলে সেটা হবে আর একটা বড় অপরাধ।

default-image

ফরিদ হোসেন বলেন, এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবসের স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরের সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথা বলেছিলেন। বাংলাদেশের উদ্যোগে ভারতের সমর্থনের কথা ভারতের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন। এই অনুষ্ঠানে অন্যদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব বিক্রম ডোরাইস্বামী। গণহত্যার ওপর তৈরি এক তথ্যচিত্র এই অনুষ্ঠানে দেখানো হয়।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন