বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বন কর্তৃপক্ষ বলেছে, বাঘ এখন বেশি পছন্দ করছে পচা মাংস। সেটি মাথায় রেখে পচা মাংস দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে নতুন এক পদ। সাত দিনের পচা মাংসের সঙ্গে পচা ডিম মিলিয়ে তৈরি করা হচ্ছে এই পদ। এই পদের দুর্গন্ধই বাঘকে ওই পচা মাংস খেতে প্রলুব্ধ করবে। টেনে আনবে ওই পচা মাংসের কাছে। তারপর চারদিকে লাগানো ক্যামেরা থেকে বাঘের ছবি তুলতে পারবে কর্তৃপক্ষ।

নতুন পদটি তৈরি করা হচ্ছে সুন্দরবন দপ্তরের তত্ত্বাবধানে। সুন্দরবনের সজনেখালীর রেঞ্জ কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ দাস সাংবাদিকদের বলেছেন, পরীক্ষামূলক কাজ প্রথম শুরু করা হয়েছে সুন্দরবনের পীরখালীর জঙ্গলে। এক সপ্তাহ ধরে এই বনে ক্যামেরা লাগানোর কাজ চলছে। তারপর চলবে ৩০ দিন ধরে নজরদারি।

এদিকে সুন্দরবনের ব্যাঘ্র প্রকল্পের কর্মকর্তা তাপস দাস বলেছেন, সুন্দরবনের সব জায়গায় ক্যামেরা বসানো সম্ভব নয়। তাই সুন্দরবন এলাকাকে ৭৪৮টি গ্রিডে ভাগ করে প্রথম পর্যায়ে ১ হাজার ৪৯৬টি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু হয়েছে।

বিশ্ব অন্যতম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গজুড়ে বিস্তৃত। সর্বশেষ বাঘশুমারিতে পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনে ৯৬টি বাঘের সন্ধান মিলেছে।

পশ্চিমবঙ্গের বন কর্মকর্তারা বলেছেন, এবার নতুন পদ্ধতিতে বাঘশুমারি হলে বাঘের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে যেতে পারে। বন কর্মকর্তারা জানান, এবার সুন্দরবনের বাঘের বিচরণক্ষেত্রের আড়াই হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় বসানো হবে ক্যামেরা।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন