তাই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব আপাতত কাটলেও শুক্রবার পর্যন্ত গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। রাজ্যের সমুদ্র উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে ভারী বৃষ্টি হবে। বিশেষ করে, কলকাতা, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, নদীয়া ও হাওড়া জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি থাকছে।

আজ আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের অধিকর্তা গনেশ দাস সাংবাদিকদের জানান, রাজ্যের উপকূল থেকে অনেকটা দূরে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে অশনি। পাশাপাশি দক্ষিণ-পূর্ব বাতাস বঙ্গোপসাগরে সক্রিয় রয়েছে। আগামী কয়েক দিন এই পরিস্থিতির কারণে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি হবে। যদিও ইতিমধ্যে অশনির শক্তিক্ষয় হয়ে সমুদ্রেই বিলীন হওয়ার পথেই রয়েছে।

গতকাল সকালের পর সন্ধ্যায় অশনির প্রভাবে কলকাতায় বৃষ্টিতে ডুবেও গেছে বহু এলাকা। রাজ্যের পর্যটন এলাকা দিঘা, মন্দার মণি, তাজপুর, শংকরপুরসহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবন অঞ্চলের সাধারণ মানুষের মনে অশনি দুর্বল হয়ে পড়ায় স্বস্তি ফিরে আসতে শুরু করেছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন