default-image

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার নির্বাচনে বিজেপির বড় চারটি নির্বাচনী জনসভা এখনো বাকি। বিজেপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদির উপস্থিতিতে চারটি সভাই হবে। তবে সেগুলো হবে এক দিনে।

পশ্চিমবঙ্গে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় চলমান বিধানসভার নির্বাচনের প্রচারে কাটছাঁট করেছে প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দল। আট দফার নির্বাচনের তিন দফা বাকি আছে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে ২১ ও ২৪ এপ্রিল এ রাজ্যে মোদির চারটি সভা করার কথা। কিন্তু সেই চার নির্বাচনী জনসভা বিজেপি বাতিল করেনি; বরং গতকাল সোমবার বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছেন, আগামী তিন দফা নির্বাচনের প্রচার চালাতে প্রধানমন্ত্রী মোদির ঘোষিত চারটি জনসভা যথারীতি হবে। তবে তা হবে করোনার বিধি মেনে। চারটি জনসভা হবে দুদিনের পরিবর্তে এক দিনেই।

অর্থাৎ মোদি সেই চার জনসভা এক দিনে, অর্থাৎ ২৪ এপ্রিল করবেন চার জায়গায়। মালদহের বিএড কলেজ ময়দান, মুর্শিদাবাদের সাদার্ন পার্ক, দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর এবং বীরভূমের সিউরিতে।

বিজেপি আরও বলেছে, জনসভায় যাঁরা আসবেন, তাঁরা করোনার বিধি মেনে মাস্ক পরে আসতে হবে। জনসভাস্থলে সেনিটাইজারের ব্যবস্থা থাকবে। যেসব নেতা মোদির মঞ্চে থাকবেন, তাঁদের ৭২ ঘণ্টা আগে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট সঙ্গে রাখতে হবে।

বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ছে প্রতিদিন। আর এরই মধ্যে বাম দল ও কংগ্রেস ইতিমধ্যে আগামী তিন দফার নির্বাচনের সব প্রচারসূচি বাতিল করে দিয়েছে। তারা বলেছে, ছোটখাটো সভা করেই প্রচার চালাবে। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী গত রোববার এক টুইটবার্তায় জানিয়েছেন, তিনিও আগামীর তিন দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের সব ধরনের প্রচারসভা, জনসভা বাতিল করেছেন।

তবে রোববার তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বড় বড় প্রচারসভা ও জনসভা বাতিল করলেও বলেছেন, তাঁর প্রচারসভা হবে ছোট আকারে। ভাষণও হবে ২০ থেকে ২৫ মিনিটের।

এদিকে নির্বাচনী প্রচার নিয়ে মোদি-মমতার ভূমিকার কঠোর সমালোচনা করেছেন কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী ও আবদুল মান্নান। তাঁরা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদি আর মুখ্যমন্ত্রী মমতা এখন মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছেন। তাঁরা এখন ব্যস্ত ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। তাঁদের দ্বারা রাজ্যের মঙ্গল হবে না। মানুষই তাঁদের বিচার করবে।

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় ২৯৪টি আসন। এরই মধ্যে পাঁচ দফায় সম্পন্ন হয়েছে ১৮০টি আসনের নির্বাচন। এখন বাকি আছে আরও তিন দফার নির্বাচন। ১১৪টি আসনে সেই নির্বাচন হবে ২২, ২৬ ও ২৯ এপ্রিল। আগামী ২ মে একযোগে এই ২৯৪টি আসনের ফলাফল ঘোষিত হবে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন