বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কলকাতা হাইকোর্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছর এপ্রিল-মে মাসে বিধানসভার নির্বাচন ও নির্বাচন-পরবর্তী সময়ে সংঘর্ষ, খুন, ধর্ষণ, শ্লীলতাহানির অভিযোগে ৬৪ অভিযোগ দাখিল করে বিজেপি ও অন্য দলগুলো। পরে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে গঠিত হয় পাঁচ সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ। গতকাল বেঞ্চে ২১টি মামলার প্রতিবেদন দেয় সিবিআই। প্রতিবেদনে এসব অভিযোগ ভুয়া বলে প্রতীয়মান হওয়ায় সেগুলো খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

গতবারের বিধানসভা নির্বাচনের পর ব্যাপক সহিংসতা ঘটে পশ্চিমবঙ্গে। অভিযোগ আসে ধর্ষণ, খুন, সংঘর্ষ, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও এলাকা থেকে বিতাড়িত করার। এ নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন আদালতে অসংখ্য মামলা করে বিজেপি। শেষমেশ অভিযোগ নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের শরণাপন্ন হয় তারা।

ইতিমধ্যে এসব মামলা নিয়ে রাজ্যে তদন্ত করতে আসে ভারতীয় মানবাধিকার কমিশনের একটি প্রতিনিধিদল। কমিশন সেসব অভিযোগের তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয় কলকাতা হাইকোর্টে। এরপর হাইকোর্ট খুন, ধর্ষণ ও যৌন হেনস্তার মতো ৬৪টি গুরুতর অপরাধের অভিযোগ তদন্তের ভার দেয় সিবিআইকে। আর অন্যান্য অভিযোগগুলোর তদন্তভার দেয় রাজ্য পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে গড়া স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম (সিট) বা বিশেষ তদন্ত কমিটির হাতে। সেই নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে সিবিআই ও সিট পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করে।

এদিকে সিটের তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে জানা গেছে, তারা ৬৮৯টি অভিযোগের মধ্যে ৫৭৩টিতে ইতিমধ্যে অভিযোগপত্র দিয়েছে। এ ছাড়া ৬৩টিতে ক্লোজার রিপোর্ট পেশ করেছে। এসব অভিযোগের কোনো সত্যতা পায়নি তারা।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন