আজকের তৃণমূলের তারকা প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বারাসাতে প্রখ্যাত চলচ্চিত্র তারকা চিরঞ্জিৎ চক্রবর্তী, কামারহাটিতে সাবেক তৃণমূল মন্ত্রী মদন মিত্র, জলপাইগুড়ির ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ী আসনে বিদায়ী মন্ত্রী গৌতম দেব, বিধাননগর আসনে বিদায়ী মন্ত্রী সুজিত বসু, রাজারহাট-গোপালপুর আসনে প্রখ্যাত কীর্তনীয়া ও ‘সারেগামাপা’খ্যাত অদিতি মুন্সী, বরাহনগর আসনে বিদায়ী মন্ত্রী তাপস রায় এবং পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বর আসনে বিদায়ী মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী।

আজ বিজেপির যেসব তারকা প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধারিত হবে, তাঁদের মধ্যে আছেন বরাহনগর আসনে অভিনেত্রী পার্নো মিত্র, রাজারহাট গোপালপুর আসনে সাবেক বিধায়ক ও বিজেপির বর্তমান রাজ্য মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য এবং বিধাননগর আসনে সাবেক বিধায়ক ও বিধাননগর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান সব্যসাচী দত্ত প্রমুখ।

সংযুক্ত মোর্চার উল্লেখযোগ্য প্রার্থীদের মধ্যে আছেন শিলিগুড়িতে রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী অশোক ভট্টাচার্য, রাজারহাট-নিউটাউনে সিপিএমের সপ্তর্ষি দেব।

করোনার কারণে পশ্চিমবঙ্গের শেষের তিন দফার নির্বাচন এক দফায় করার আবেদন জানিয়েছিল শাসক দল তৃণমূল। এ নিয়ে গতকাল শুক্রবার কলকাতার নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে এক সর্বদলীয় বৈঠক হয়। সেখানে এ নির্বাচনের তফসিল পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা হলেও নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল পরিবর্তন করার কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এই সর্বদলীয় বৈঠকের পর রাতে দিল্লি থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এখন থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত কোনো রাজনৈতিক দল প্রচার চালাতে পারবে না। আর নির্বাচনের ৭২ ঘণ্টা আগে থেকে বন্ধ হবে প্রচার। এখন আরও তিন দফার নির্বাচন হবে ২২, ২৬ ও ২৯ এপ্রিল। ফল ঘোষিত হবে আগামী ২ মে।

আজকের এই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করার জন্য নির্বাচন কমিশন নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করেছে। ৪৫টি নির্বাচনী এলাকার ভোটকেন্দ্রে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আজকের এই ভোটপর্বে ভোট নেওয়া হচ্ছে ১৫ হাজার ৭৮৯টি কেন্দ্রে। স্পর্শকাতর কেন্দ্র ১০ হাজার ৫৬৫টি। ভোটার ১ কোটি ১৩ লাখ ৫৭ হাজার ৩০০। আজকের ভোটকে নির্বিঘ্ন করতে গোটা ভোটকেন্দ্র এলাকায় ৮৫৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। আর রাজ্য পুলিশ থেকে নিয়োগ করা হয়েছে ৩২ হাজার ৬৭২ জন পুলিশ।

আরেক প্রার্থীর মৃত্যু

গতকাল সন্ধ্যায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরেক প্রার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তাঁর নাম প্রদীপ নন্দী। বয়স ৭২। তিনি সংযুক্ত মোর্চার আরএসপি দলের মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর আসনের প্রার্থী ছিলেন। পেশায় ছিলেন আইনজীবী। কদিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। ৫ এপ্রিল তাঁর করোনার পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এরপরই তাঁকে ভর্তি করানো হয় বহরমপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ওয়ার্ডে। সেখানেই তিনি গতকাল সন্ধ্যায় মারা যান। ২৬ এপ্রিল জঙ্গিপুর বিধানসভা আসনে ভোট গ্রহণের কথা ছিল।

এর আগে এই মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর মহকুমার কংগ্রেসের আরেক প্রার্থী রেজাউল হক ওরফে মন্টু বিশ্বাস (৫০) গত বৃহস্পতিবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন