default-image

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মানুষের অনেক প্রত্যাশা ছিল। বিগত ১০ বছরের দিকে তাকালে শুধুই দেখবেন, মানুষকে ঠকানো হয়েছে।’ পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন উপলক্ষে তিন দিনের পশ্চিমবঙ্গে সফরে এসে এসব কথা বলেছেন অমিত শাহ।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় কলকাতার উপশহর রাজারহাটের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

অমিত শাহ পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘এ সরকার এখন তুষ্টিকরণের সরকার। মানুষের মনে তাই ক্ষোভ বাড়ছে। বাংলায় বিজেপিকে আগামী রাজ্য বিধাসভা নির্বাচনে জয়ী করুন। বিজেপিই গড়বে সোনার বাংলা। মোদি সরকারই আজ দেশের ৬০ কোটি মানুষের জীবনধারা পাল্টে দিয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

অমিত শাহ আরও বলেছেন, ‘আপনারা কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস এবং বাম দলকে ক্ষমতায় এনেছেন। তাদের শাসন দেখেছেন। এবার বিজেপিকে সুযোগ দিন। বিজেপি মোদির নেতৃত্বে এই বাংলাকে ৫ বছরে সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলবে। বিজেপি শাসিত রাজ্যে সুশাসন চলছে। এপ্রিলে এই সরকারের পতন অনিবার্য।’

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রসঙ্গে বিজেপির এ নেতা বলেন, ‘শিগগিরই ভারতে কার্যকর হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা সিএএ। করোনার কারণে এই আইন সংসদে পাস হলেও কার্যকর করা যায়নি। এবার এ আইন কার্যকর করা হবে। সব উদ্বাস্তু পেয়ে যাবেন নাগরিকত্ব।’

গত বুধবার রাতে অমিত শাহ কলকাতায় এসে নিউটাউনের একটি হোটেলে রাত কাটান।

বৃহস্পতিবার যোগ দেন দলীয় সাংগঠনিক বৈঠকে। অমিত শাহ ঘোষণা দেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গেছে। মানুষ ক্ষমতায় আনবে বিজেপিকে। ২০০ আসন পেয়ে এই রাজ্যে সরকার গড়বে বিজেপি।’

মমতার সমালোচনা করে অমিত শাহ আরও বলেন, বাংলার মানুষ ঠিক করবে তারা মমতার ভাইয়ের ছেলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী চান কি না। ভাইয়ের ছেলেকে মুখ্যমন্ত্রী করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন তিনি। বাংলার মানুষই ঠিক করবেন পরিবারতন্ত্র চায়, নাকি বাংলার উন্নয়ন চান। বিজেপি আগেভাগে কাউকে মুখ্যমন্ত্রী করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেনি। নির্বাচনের পর সর্বসম্মতিক্রমে মুখ্যমন্ত্রী নিয়োগ করেছে।’

মন্তব্য পড়ুন 0