default-image

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে মুসলিম ভোট হারাতে চায় না শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। এ রাজ্যে মুসলিম ভোটের বড় অংশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসে ভোট দেয় বলে মনে কর হয়। বিজেপি এবার এ ভোটে ভাগ বসাতে চায়। তবে মমতা ভোট ধরে রাখতে মাঠে নেমে পড়েছেন।

বিহার রাজ্য বিধানসভার নির্বাচনে আসাউদ্দিন ওয়েইসির দল অল ইন্ডিয়া মজলিশে ইত্তেহাদুল মুসলেমিন বা মিম পাঁচটি বিধানসভা আসনে জয়ী হয়েছে। উজ্জীবিত মিম পশ্চিমবঙ্গেও মাঠে নেমে পড়েছে। বিহার সীমান্তসংলগ্ন উত্তর দিনাজপুর, মালদহ ও মুর্শিদাবাদ এলাকায় ইতিমধ্যে শক্তিশালী হয়ে উঠছে মিম। এতে উদ্বেগ বেড়েছে মমতা শিবিরে।

বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গের ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকী এত দিন তৃণমূলকে সমর্থন দিয়ে আসছিলেন। তাঁর ভাইপো পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী এবার নতুন দল গড়ে নির্বাচনে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। ৪৪টি আসনে প্রার্থী দিতে চান তিনি। এতে মমতার অস্বস্তি আরও বেড়েছে।

উদ্বেগ কমাতে মমতা গতকাল রাজ্য সচিবালয় নবান্নে ত্বহা সিদ্দিকীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। আসন্ন রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছেন তাঁরা। ত্বহা সিদ্দিকী রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভা আসনের মধ্যে ৮০টিতে মুসলিম প্রার্থী দেওয়ার দাবি করেছেন। এ রাজ্যে মুসলিম জনসংখ্যার হার ২৭ শতাংশ।

default-image

পশ্চিমবঙ্গে মুসলিম ভোট ভাগ হওয়ার শঙ্কা ছড়িয়েছে তৃণমূলে। বিজেপির সেটাই চাওয়া। ভোটের রাজনীতিতে তাতে বিজেপির লাভ। বিজেপি টার্গেট করেছে মুসলিম ভোটকে। বিজেপির নেতারা প্রচারে নেমেছেন।

আগামী বছরের এপ্রিল-মে মাসে রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভা আসনে নির্বাচন হওয়ার কথা। গত ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি এই রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে ১৮টি আসনে জয়ী হয়। তারা স্বপ্ন দেখছে পশ্চিমবঙ্গের শাসনক্ষমতায় যাওয়ার। বিজেপি সংখ্যালঘু মোর্চার এক নেতা বলেছেন, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ২৭টি আসনে মুসলিম প্রার্থী দিতে পারে।

তৃণমূল বলছে, ক্ষমতায় ফের আসবে তারাই। মমতা হ্যাটট্রিক করবেন। বিজেপির স্বপ্ন বাস্তবে রূপ পাবে না। রাজ্যের মানুষ ধর্মান্ধ বিজেপিকে ভোট দেবে না। রাজ্যের মানুষ ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শে লালিত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন