default-image

পশ্চিমবঙ্গের এবারের বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) জয়ের আশা পুনর্ব্যক্ত করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, বাংলায় এবার বিজেপি জিতছে। আর নতুন সরকারে মুখ্যমন্ত্রী হবেন বাংলারই ভূমিপুত্র। আজ শনিবার দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার সোনারপুরে বিজেপি আয়োজিত অন্য এক নির্বাচনী জনসভায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে দুই দফায় ৬০ আসনে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। আরও ছয় দফায় ভোট গ্রহণ শেষে আগামী ২ মে চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে। তবে দুই দফায় ভোট শেষে জয়ের ব্যাপারে চরম আত্মবিশ্বাসী বিজেপি নেতা মোদি। সোনারপুরের জনসভায় তিনি বলেন, গত ১০ বছরে এই বাংলায় শুধু দুর্নীতিবাজদের শাসন চলেছে। দুর্নীতিরাজ কায়েম হয়েছে। ২ মে বাংলার মানুষ এক ঐতিহাসিক জয় পাবে। বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী হবেন এই বাংলারই ভূমিপুত্র।

তৃণমূল নেত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করে এই সময় মোদি আরও বলেন, জাল ভোট দিতে না পেরে দিদি খেপেছেন। দোষারোপ করছেন ইভিএম ও নির্বাচন কমিশনকে। বাংলার মানুষ আর চায় না তৃণমূলের গুন্ডাদের অত্যাচার। মানুষ এবার সজাগ হয়েছে। গুন্ডা বাহিনীকে আর এই বাংলায় মাথা তুলে দাঁড়াতে দেবে না। দিদি এবার আপনার গুন্ডাদের সামলান। এই বাংলায় গুন্ডাগিরি চলবে না।

বিজ্ঞাপন

বিজেপির জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মোদি বলেন, বাংলার নতুন সরকার তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনীকে রুখতে প্রস্তুত। এবার দিদি যাচ্ছেন, আসছে বিজেপি।
এর আগে হুগলি জেলার হরিপালে এক নির্বাচনী জনসভায় অংশ নেন মোদি। সেখানে তিনি বলেন, বাংলায় ডাক উঠেছে, তৃণমূল হটাও, বাংলা বাঁচাও, বিজেপি জেতাও। আর রাজ্যের মানুষও এবার দিদির সরকার হটাতে একজোট হয়েছে। প্রথম দুই দফার নির্বাচনে তা স্পষ্ট হয়ে গেছে। নন্দীগ্রামের নির্বাচনও একই আভাস দিয়েছে। বাংলায় পরিবর্তন নিশ্চিত।

এবারের নির্বাচনে তৃণমূলের ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে কটাক্ষ করে মোদি বলেন, দিদি বললেও নির্বাচন খেলা নয়। গণতন্ত্রও খেলা নয়। গণতন্ত্র মানুষকে সেবা করার পথ দেখায়। দেশের উন্নয়নের পথ দেখায়। দিদির খেলা শেষ। এবার সত্যি সত্যি বাংলায় আসল পরিবর্তন আসছে।
প্রচারণায় মমতার কথাবার্তার সমালোচনা করেন মোদি। তিনি বলেন, বাংলা ভাষার একটা মিষ্টতা আছে। কিন্তু দিদির মুখে সেই বাংলা ভাষায় আছে শুধু তিক্ততা। দিদির অভিযোগ, বিজেপি নির্বাচনে টাকা ছড়াচ্ছে। এই কথা বলে তিনি বাংলার মানুষকে অপমান করছেন। বাংলার মানুষ টাকা নেওয়ার রাজনীতি করে না। দেশের জন্য রাজনীতি করে।

সিঙ্গুরের মানুষের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা প্রতারণা করেছেন মন্তব্য করে মোদি বলেন, সিঙ্গুরের মাটিতে শিল্প হয়নি। আলুর জন্য পর্যাপ্ত হিমাগার পর্যন্ত নেই। সিঙ্গুরের মাঠে নষ্ট হচ্ছে আলু। এখানকার মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন দিদি। ধোঁকা দিয়েছেন।
মোদির মতে, শুধু সিঙ্গুর না, পুরো পশ্চিমবঙ্গের একই অবস্থা। তবে অচিরেই পরিস্থিতি বদলে যাবে। বিজেপি ক্ষমতায় এলে পশ্চিমবঙ্গে সিন্ডিকেট–বাণিজ্য বন্ধের কথা জানিয়ে মোদি বলেন, দিদির বাংলায় চাকরি নেই, শিল্প নেই, কর্মসংস্থান নেই। বেকার সমস্যা চরমে। বাংলার পুরোনো শিল্প বিক্রি হচ্ছে। নতুন শিল্প হচ্ছে না। বাংলায় বিজেপি সরকার উন্নয়নের জোয়ার আনবে। শিল্প হবে, মানুষের কর্মসংস্থান হবে, বন্ধ হবে সিন্ডিকেট–বাণিজ্য।

মমতাকে পরাজয় স্বীকার করে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মোদি বলেন, ২ মে ভোটের ফলের দিন কী হবে, তার আভাস পেয়ে গেছে বাংলার মানুষ। নন্দীগ্রাম সেই আভাস দিয়েছে। সেই আভাস পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন দিদি। কারণ, ১০ বছরে মানুষের সেবা করতে ভুলে গেছেন তিনি। মিশে গেছেন তোলাবাজ, চাঁদাবাজ, কয়লা মাফিয়া, বালু মাফিয়া, কাটমানি ও সিন্ডিকেট ব্যবসার সঙ্গে। তাই তো বাংলার মানুষ এবার জেগে উঠেছে। ধ্বনি তুলেছে দিদিকে হটাও, বাংলাকে বাঁচাও। তাই বলছি, দিদি এবার হার মেনে নিন।

আগামী ২ মে চূড়ান্ত ফলের পর বাংলায় বিজেপি সরকার গঠন করলে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার আশা প্রকাশ করেন নরেন্দ্র মোদি।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন