default-image

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতা চলতে থাকলে রাজ্যে রাষ্ট্রপতির শাসন চাইবে বিজেপি। দলটির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা গতকাল শনিবার এই হুমকি দেন। এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

সদ্য পাস হওয়া বিতর্কিত আইনটির বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গের বেশ কয়েকটি এলাকায় বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভে সহিংসতার ঘটনাও ঘটেছে। এই বিক্ষোভের পেছনে ‘অনুপ্রবেশকারী মুসলিমদের’ হাত রয়েছে বলে দাবি রাহুল সিনহার।

গতকাল রাহুল সিনহা বলেন, পশ্চিমবঙ্গে এই অবস্থা চলতে থাকলে বিজেপি রাজ্যে রাষ্ট্রপতির শাসন জারির দাবি জানাবে।

পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য তৃণমূল নেত্রী ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘সংখ্যালঘু তোষণনীতি’কে দায়ী করেছেন রাহুল সিনহা।

কলকাতায় সাংবাদিকদের রাহুল সিনহা বলেন, আইন কার্যকর করার জেরে গত দুদিন ধরে রাজ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু তা সামাল দিতে মমতা তেমন কিছু করেননি।

রাহুল সিনহা বলেন, বিজেপি কখনোই রাষ্ট্রপতির শাসন সমর্থন করে না। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে যদি এই সহিংসতা অব্যাহত থাকে, তাহলে রাজ্যে রাষ্ট্রপতির শাসন চাওয়া ছাড়া বিজেপির আর কোনো উপায় থাকবে না। পুরো রাজ্য যখন জ্বলছে, তখন তৃণমূল কংগ্রেস সরকার নীরব দর্শকের ভূমিকায় রয়েছে।

দেশের উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলোর পাশাপাশি গত শুক্রবার এই আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ পশ্চিমবঙ্গেও ছড়িয়ে পড়ে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাসের পর পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষোভের ডাক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই আইনকে কর্তৃত্ববাদী আইন বলে আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন