বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আগামী আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে করোনার এই তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানতে পারে। ফলে করোনাকে নিয়ে স্বস্তি ও অস্বস্তির সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আছে পশ্চিমবঙ্গ।
এদিকে গতকাল সোমবার রাতে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টার রিপোর্টে বলা হয়েছে, কলকাতাসহ এই রাজ্যে করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার নিম্নমুখী। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৮৮৫টি।

আর মারা গেছেন ১১ জন। এর মধ্যে কলকাতায় সংক্রমিত হয়েছেন ৬৫ জন, মারা গেছেন ১ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৯০ জন, মারা যাননি কেউ।

রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এখন পশ্চিমবঙ্গে সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৮৫ শতাংশ, আর সংক্রমণের হার ২ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১ হাজার ২৪৪ জন করোনা রোগী। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত এই রাজ্যে করোনামুক্ত হয়েছেন ১৪ লাখ ৮০ হাজার ৫৫৬ জন।

আর আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ১৩ হাজার ১৪ জন। এখন পর্যন্ত কলকাতাসহ এই রাজ্যে মারা গেছেন ১৭ হাজার ৯২৭ জন। আর রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৪ হাজার ৫৩১ জন করোনা রোগী।

রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই রাজ্যের ২৩টি জেলার মধ্যে ১৬টি জেলায় সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় কেউ মারা যাননি। এই ১৬ জেলা হলো আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, কালিম্পং, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদা, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমান, হাওড়া এবং উত্তর ২৪ পরগনা জেলা। আবার এই রাজ্যের ২৩ জেলার মধ্যে সংক্রমণের হার সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় কম ছিল উত্তর দিনাজপুর (৭ জন), দক্ষিণ দিনাজপুর (৬ জন), মুর্শিদাবাদ (৮ জন) ও পুরুলিয়া (৬ জন)।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন সূত্র বলেছে, এই জেলার ১০৭টি গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পৌরসভার ৪২১টি ওয়ার্ডে এখন করোনা সংক্রমণশূন্য। গোটা রাজ্যজুড়ে এখনো চলছে করোনার নমুনা পরীক্ষার পাশাপাশি করোনার টিকা প্রদান কর্মসূচি।

গতকাল রাতে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিনে বলা হয়েছে, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে ৪৫ হাজার ২৮৭ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। আর সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৪৮ লাখ ১৫ হাজার ২১ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন