default-image

টিকা দেওয়ার জন্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ১ হাজার ৯২৮টি টিকাকেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। আগামী শনিবার থেকে টিকা দেওয়া শুরু হবে।

আজ সোমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশের বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করে টিকা দেওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। দ্বিতীয় দফার টিকাকরণ কবে শুরু হবে, সে ব্যাপারে এখনো কেন্দ্রীয় সরকার কিছু জানায়নি। মনে করা হচ্ছে, আজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে  মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যেতে পারে।

বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগম জানিয়েছেন, প্রথম দফায় টিকা দেওয়া হবে রাজ্যের ১ হাজার ৯২৮টি টিকা কেন্দ্রে। এই লক্ষ্যে ২০ হাজার টিকা প্রদানকারীর প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। বাকিদেরও প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে কোভিশিল্ড টিকা আসছে। আর শনিবার থেকে শুরু হবে এই টিকাকরণ কর্মসূচি। শনি ও রোববারসহ সপ্তাহের সাত দিনই দেওয়া হবে টিকা। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত টিকা দেওয়া হবে।

প্রথম দফায় কলকাতার পিজি হাসপাতাল ও নীলরতন সরকার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে টিকা দেওয়া হবে। এ ছাড়া রাজ্যের সব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জেলা হাসপাতালসহ থানা পর্যায়ের স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও হাসপাতাল এবং গ্রামীণ হাসপাতালেও টিকা দেওয়া হবে।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রথম দফায় পশ্চিমবঙ্গের জন্য ১০ লাখ ৮০ হাজার টিকা বরাদ্দ করেছে। দেশে প্রথম পর্যায়ে দেওয়া হবে ৩ কোটি ডোজ টিকা। প্রথম দফায় এই টিকা পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, নার্স, পুলিশ কর্মীরা পাবেন। আর দ্বিতীয় পর্যায়ে এই টিকা পাবেন দেশের পঞ্চাশোর্ধ্ব বয়সী মানুষেরা। তবে ৫০–এর নিচের অসুস্থ ব্যক্তিদেরও এই কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। আর দ্বিতীয় পর্যায়ে দেওয়া হবে ২৭ কোটি টিকা। সব মিলিয়ে দুটি দফায় লাগবে ৩০ কোটি টিকা।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে বিনা মূল্যে করোনা টিকা দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন