default-image

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন দ্বারপ্রান্তে। এই রাজ্যের প্রথম দফায় ভোট নেওয়া হবে ২৭ মার্চ। ওই দিন ভোট দেবেন রাজ্যের ৩০টি বিধানসভা আসনের ভোটাররা। এই আসনগুলো রয়েছে পাঁচটি জেলায়। জেলাগুলো হলো পুরুলিয়া, বাঁকুরা, ঝাড়গ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর ও পশ্চিম মেদিনীপুর।

এই ৫ জেলার ৩০টি আসনের পর বাকি আসনগুলোতে নির্বাচন হবে পরবর্তী আরও ৭ দফায়। আগামী ১, ৬, ১০, ১৭, ২২, ২৬ ও ২৯ এপ্রিল হবে এসব নির্বাচন। আর ফলাফল ঘোষণা হবে ২ মে একযোগে।

প্রথম দফার ৩০টি আসনে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৯১ জন প্রার্থী। জানা গেছে, এই ১৯১ জন প্রার্থীর মধ্যে ১৯ জন কোটিপতি। ওয়েস্টবেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচ এসব প্রার্থীর মনোনয়নপত্রের সঙ্গে দাখিল করা হলফনামা পর্যালোচনা করে প্রকাশিত এক সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলেছে, প্রথম দফায় অংশগ্রহণকারী ৪৮ জন প্রার্থীর বিরুদ্ধে রয়েছে নানা ফৌজদারি অপরাধের মামলা। এর মধ্যে ৪২ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে গুরুতর ফৌজদারি অপরাধের মামলা। এ তালিকায় রয়েছেন বিজেপির ১১, তৃণমূলের ৮, সিপিএমের ৯ ও কংগ্রেসের ১ জন প্রার্থী।

বিজ্ঞাপন

আবার ১৯ জন কোটিপতি প্রার্থীর মধ্যে ২ কোটি ও তার বেশি সম্পদ রয়েছে ৭ জনের। ১০ লাখ থেকে ৫০ লাখ রুপির সম্পদ রয়েছে ৬৯ জন প্রার্থীর। আর ১০ লাখের নিচে সম্পদ রয়েছে ৭৫ জন প্রার্থীর।

পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরের বিজেপি প্রার্থী অম্বুজ মহন্তির সম্পদ ১০ কোটি রুপির।

কোটিপতি প্রার্থীর তালিকার শীর্ষে রয়েছেন তিনি। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানেও রয়েছেন বিজেপি ও তৃণমূল প্রার্থীরা। তাঁরা হলেন কাঁথি উত্তর আসনের বিজেপি প্রার্থী সুনিতা সিনহা ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর আসনের তৃণমূল প্রার্থী দীনেন রায়। সুনিতা সিনহার সম্পদের পরিমাণ চার কোটি ও দীনেন রায়ের তিন কোটি রুপি।

আজ শনিবার ওয়েস্টবেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচের এই সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তালিকায় চারজন প্রার্থী রয়েছেন, যাঁদের কোনো সম্পদ নেই।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন