তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক ও দলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ আজ শনিবার স্পষ্ট জানিয়ে দেন, প্রশান্ত কিশোর একজন ভোটকুশলী। তিনি কখনো তৃণমূলে ছিলেন না। ফলে তাঁকে নিয়ে তৃণমূল ছাড়ার প্রচারও ঠিক নয়।

প্রশান্ত কিশোরের কংগ্রেসে যোগদান প্রসঙ্গে কুণাল ঘোষ বলেছেন, তিনি যেকোনো রাজনৈতিক দল নিয়ে কথা বলতেই পারেন। দেশে কংগ্রেসের ব্যর্থতার কথা সবাই জানে। প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে কংগ্রেস যদি ঘুরে দাঁড়াতে পারে, সে চেষ্টা তো করতে পারেন তিনি। তিনি বলেন, বিজেপিকে হারানো তৃণমূলের লক্ষ্য। কংগ্রেসেরও লক্ষ্য বিজেপিকে হারানো।

এর আগে ১৬ এপ্রিল কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করেন প্রশান্ত কিশোর। বৈঠকে রাহুল গান্ধীসহ কংগ্রেসের অপর শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

রাজনৈতিক সূত্রগুলোর দাবি, প্রশান্ত নিজেই এদিন কংগ্রেস নেতাদের সামনে দলে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। ২০২৪ সাল পর্যন্ত ভোটের মাঠে দলটির কৌশল কেমন হওয়া উচিত, সেটা নিয়েও একটি রোডম্যাপের কথা কংগ্রেস নেতাদের বলেছেন তিনি। প্রশান্ত কিশোর জানিয়েছেন, আগামী লোকসভা নির্বাচনে ৫৪৪ আসনের মধ্যে ৩৭০টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার প্রস্তুতি নিতে হবে কংগ্রেসকে। তবে রাজ্যবিশেষে বদলে ফেলতে হবে পরিকল্পনা। উত্তর প্রদেশ, ওডিশা ও বিহারের মতো রাজ্যে লড়াইয়ে কংগ্রেসের জোর কম, সেসব রাজ্যে শক্তি বাড়াতে দলকে একা লড়াই করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রশান্ত।

রাজনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, আগামী তিন থেকে চার দিনের মধ্যেই প্রশান্ত কিশোর যোগ দিতে পারেন কংগ্রেসে। প্রশান্ত কিশোর এর আগে বিহারে নিতীশ কুমারের সংযুক্ত জনতা দলের সহসভাপতি ছিলেন। এবার যোগ দিতে যাচ্ছেন কংগ্রেসে। রাজস্থানের কংগ্রেসদলীয় মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটও এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন