বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘মা ফ্লাইওভার’ নামের এই উড়ালসেতুটি কয়েক বছর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্বোধন করেছিলেন। বাইপাসের ওপর যেখানে উড়ালসেতুটি বাঁ দিকে বাঁক নিয়ে বিমানবন্দরের দিকে গেছে, সেই অংশের বাঁ দিকে বেশ কিছু পাঁচতারা হোটেল ও বহুতল ভবন রয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই জায়গাটি ঝকঝকে। বিজ্ঞাপনে এই অংশটি উত্তর প্রদেশ বলে প্রকাশিত হওয়ায় সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনার সৃষ্টি হয়। তৃণমূল কংগ্রেসও ইতিমধ্যে বিষয়টিকে ইস্যুতে পরিণত করতে মাঠে নেমে পড়েছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এ নিয়ে টুইট করেন। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘উত্তর প্রদেশকে পাল্টে ফেলার অর্থ এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বাংলার পরিকাঠামোগত উন্নয়নকে চুরি করে ওই রাজ্যের উন্নয়ন বলে প্রমাণ করার চেষ্টা। বিজেপির প্রস্তাবিত “ডবল ইঞ্জিন মডেল” (রাজ্য ও কেন্দ্রে একই দলের সরকার থাকলে উন্নতি দ্রুত হয়—এই বক্তব্য) সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়ে গেছে। তাদের সবচেয়ে শক্তিশালী রাজ্যের ভাঁওতা আজ প্রকাশ্যে বেরিয়ে এসেছে।’ রোববার দুপুরের দিকে দেখা যায় টুইটারে ‘মা ফ্লাইওভার’ এই শব্দবন্ধ ট্রেন্ডিং করছে। ফেসবুকও সয়লাব এই বিজ্ঞাপন ও সংশ্লিষ্ট মন্তব্যে।

ইতিমধ্যে সর্বভারতীয় সংশ্লিষ্ট দৈনিকটি কলকাতার ছবি উত্তর প্রদেশের উন্নয়নের চিত্র বলে প্রচার করার জন্য ক্ষমা চেয়েছে। তারা লিখেছে, ‘অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। ছবিটি যাবতীয় ডিজিটাল সংস্করণ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় বিরোধী দল নেতা বিজেপির শুভেন্দু অধিকারী এ নিয়ে কথা বলেন। সামাজিক মাধ্যমে তিনি বলেন, যোগী আদিত্যনাথের সরকার উত্তর প্রদেশে প্রভূত উন্নয়ন করেছে এবং প্রবৃদ্ধির রাস্তায় রাজ্যকে নিয়ে গিয়েছে। ফলে তাদের এমন একটি রাজ্যের ছবি ছাপানোর দরকার নেই, যা ঋণগ্রস্ত, যেখানে প্রশাসন ভেঙে পড়েছে। একটি সংবাদপত্রের ভুলকে আশ্রয় করে ভুয়া প্রচারের রাস্তায় নেমেছে এরা (তৃণমূল)।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন