বিজ্ঞাপন

আজ শুক্রবার বিকেলে কলকাতায় তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য দপ্তর তৃণমূল ভবনে মুকুল রায়কে আবারও দলে টেনে নিলেন মমতা। পাশাপাশি বসে সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানালেন ঘরের ছেলের ঘরে ফেরার খবর। মমতা বলেন, মুকুল রায় তৃণমূল পরিবারের সদস্য ছিলেন। আজ তিনি নিজের ঘরে ফিরতে পেরে শান্তি পেলেন।
পশ্চিমবঙ্গে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে মমতার তৃণমূলের কাছে ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির। নরেন্দ্র মোদি–অমিত শাহের ক্যারিশম্যাটিক জুটি মমতার রাজনীতির কাছে পাত্তা পায়নি। ভোটের আগে অনেকেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছিলেন। এখন অনেকেই ঘরে (তৃণমূলে) ফিরতে চাইছেন। এই তালিকায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় নাম মুকুল রায়।

তবে মমতা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের বিরুদ্ধে একটি কথাও খরচ করেননি মুকুল। তাই তৃণমূল আজ তাঁকে পরিবারের সদস্য হিসেবে ফিরিয়ে এনেছে। তবে যারা বিজেপিতে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কুৎসা রটিয়েছে, নিন্দা করেছে, তাদের ফেরানো হবে না।

মমতার পাশে বসে মুকুল রায় সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘বিজেপিতে কাজ করার মতো সুযোগ ছিল না। তাই পুরোনো দলে ফিরে এলাম। খুব ভালো লাগছে। বাংলা আবার নিজের জায়গায় ফিরবে। তৃণমূল আরও জোরদার হবে মমতার নেতৃত্বে।’

২০১৭ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর মুকুল তৃণমূল ছেড়ে যান। ওই সময় তিনি দলটির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। একই বছরের ৩ নভেম্বর তিনি বিজেপিতে যোগ দেন। ২০২০ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর মুকুল বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি হন। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে মুকুল নদীয়ার কৃষ্ণনগর উত্তর আসনে বিজেপির প্রার্থী ছিলেন। জয়ও পেয়েছেন।

মুকুলের পাশাপাশি এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর ছেলে শুভ্রাংশু রায় বিজেপির হয়ে লড়েছেন। যদিও উত্তর চব্বিশ পরগনার বীজপুর আসনে হেরে যান শুভ্রাংশু। আজ তৃণমূলে যোগদানের আয়োজনে মুকুলের পাশে শুভ্রাংশু ছিলেন। আর মমতার পাশে ছিলেন তৃণমূলের তরুণ মুখ ও সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন