default-image

ভারতে নির্বাচন শুরুর আগেই অরুণাচল প্রদেশে দুটি আসনে বিনা ভোটেই জিতে গেল বিজেপি। কারণ বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিরোধীরা কোনো প্রার্থীই দিতে পারেনি। আর বিনা ভোটে দুই আসনে জিতে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের দাবি, জয়ের শুভারম্ভ। বিজেপিই জিতছে।

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দুই দফার মনোনয়নপত্র দাখিল পর্ব শেষ হলো আজ মঙ্গলবার। অরুণাচল প্রদেশে লোকসভার সঙ্গেই হচ্ছে ৬০ সদস্যের রাজ্য বিধানসভার ভোট। আজ ছিল মনোনয়নপত্র পরীক্ষার দিন। দেখা যায় রাজ্যের আলো (পূর্ব) ও ইয়েচুলি বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপিই শুধু প্রার্থী দিয়েছে এবং প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বৈধ। এই দুই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীরা হলেন কেন্টো চিনি ও টাবা টেডির। তাঁদের জয়কে স্বাগত জানিয়েছেন বিজেপিশাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রেমা খান্ডু। টুইটবার্তায় তিনি দুই প্রার্থীকেই অভিনন্দন জানিয়েছেন। আর বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব এদিন টুইট করে বলেছেন, ‘জয়ের শুরু। পূর্ব (অরুণাচল প্রদেশ)থেকেই শুরু হলো জয়যাত্রা।’

উত্তর-পূর্ব ভারতের এই রাজ্যটিতে বিনা ভোটে জয়ের পরম্পরা বহুদিনের। ২০১৪ সালে একজন এবং ২০০৯ সালে ৩ জন বিধানসভা নির্বাচনে বিনা ভোটে জয়ী হন। দুবারই বিজয়ীরা ছিলেন কংগ্রেসের। অবশ্য বিনা ভোটে জেতার মতোই দলবদলও এখানকার ঐতিহ্য। আকারে বড় হলেও জনসংখ্যা অনেক কম চীন সীমান্তবর্তী রাজ্যটির। ২০১১ সালের ভারতীয় আদমশুমারি অনুযায়ী জনসংখ্যা ১৩ লাখ ৮৩ হাজার ৭২৭। আর এবার ভোটারের সংখ্যা ৭ লাখ ৮৪ হাজার ৮৭০। বর্তমানে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় থাকলেও গত বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসই ক্ষমতায় এসেছিল। কিন্তু দলবদলের মাধ্যমে বিজেপি ক্ষমতায় আসে।

অরুণাচল প্রদেশে বিধানসভার পাশাপাশি রয়েছে লোকসভার দুটি আসনের ভোট। অরুণাচল পূর্ব আসনে বিজেপির হয়ে ভোটে লড়ছেন ভারতের স্বরাষ্ট্র রাষ্ট্রমন্ত্রী কিরেন রিজেজু। এই আসনে তাঁর বিরুদ্ধে কংগ্রেস দাঁড় করিয়েছে রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী নাবুম টুকিকে। বিধানসভা ও লোকসভা ভোটকে কেন্দ্র করে জমজমাট অরুণাচল প্রদেশ।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন