default-image

বোমার হুমকি পেয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের আগ্রার তাজমহল অল্প সময়ের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তাজমহল প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় দর্শনার্থীদের।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, তাজমহলে বোমা বিস্ফোরিত হবে বলে একটি ফোন পায় উত্তর প্রদেশ পুলিশ। উত্তর প্রদেশ পুলিশের হেল্পলাইনে ফোন আসে। ফোন পাওয়ার পরপরই কর্তৃপক্ষ তৎপর হয়ে ওঠে।

সপ্তদশ শতকের ঐতিহাসিক মুঘল স্থাপত্য তাজমহল রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপের। আর তার নিরাপত্তার দায়িত্ব সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের।

বোমার বিষয়ে ফোন পেয়েই উত্তর প্রদেশ পুলিশ দ্রুত সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সকে অবহিত করে। তারা দ্রুত তাজমহল প্রাঙ্গণ খালি করে দেয়। দর্শনার্থীদের সরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

আগ্রা পুলিশের আইজি সতীশ গণেশ বলেন, সকালে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি উত্তর প্রদেশ পুলিশের হেল্পলাইনে ফোন করেন। ফোনে তিনি বলেন, তাজমহলে একটি বোমা বিস্ফোরিত হবে। তাৎক্ষণিকভাবে বোমা স্কোয়াড ও অন্যান্য দল পুরো তাজমহল প্রাঙ্গণে তল্লাশি চালায়। তবে সেখানে কোনো বোমা পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

আগ্রা পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, তিনি সবাইকে এই বলে আশ্বস্ত করতে চান যে এটা একটা ভুয়া ফোন কল ছিল।

তন্নতন্ন করে তল্লাশির পরও কোনো বোমা খুঁজে না পাওয়ার পর তাজমহলে দর্শনার্থীদের ফের ঢুকতে দেওয়া হয়। স্থানীয় সময় বেলা ১১টার কিছু পর দর্শনার্থীরা আবার তাজমহল প্রাঙ্গণে ঢুকতে পারেন।

এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা পিটিআইকে বলছে, ভুয়া ফোনটি উত্তর প্রদেশের ফিরোজাবাদ এলাকা থেকে করা হয়েছে বলে তাঁরা শনাক্ত করতে পেরেছেন।

করোনার কারণে ছয় মাসের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে মাসে দর্শনার্থীদের জন্য তাজমহল ফের খুলে দেওয়া হয়। করোনা মহামারির কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে তাজমহল বন্ধ ছিল।

দর্শনার্থীদের জন্য তাজমহল খুলে দেওয়া হলেও করোনার কঠোর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা হচ্ছে।

প্রতিবছর প্রায় ৭০ লাখ দর্শনার্থী তাজমহল পরিদর্শন করেন। এই দর্শনার্থীদের বেশির ভাগই বিদেশি।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন