default-image

রাশিয়ার টিকার বড় আকারের পরীক্ষা ভারতে করার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে দেশটির ওষুধ নিয়ন্ত্রকেরা। ভারতের ড. রেড্ডিস ল্যাবরেটরি লিমিটেড রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি কোভিড-১৯ টিকাটি দেশে বড় আকারের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করতে চেয়েছিল। ওষুধ নিয়ন্ত্রকেরা বড় আকারে পরীক্ষা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ছোট আকারে পরীক্ষা করতে বলছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, গত মাসেই রাশিয়ার টিকা বিপণনে নিয়োজিত রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (আরডিআইএফ) ভারতের ড. রেড্ডিস ল্যাবরেটরি লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করে। এ সময় তাদের করোনা টিকার ১০ কোটি ডোজ সরবরাহ করার বিষয়টিও নিশ্চিত করে। আরডিআইএফের একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছিল। এখন নিয়ন্ত্রকেরা পরীক্ষার অনুমোদন না দেওয়ায় সেই চুক্তিতে জোর ধাক্কা লাগতে পারে।

বিজ্ঞাপন

ভারতের সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশনের (সিডিএসসিও) বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, রাশিয়ার টিকাটির প্রাথমিক ধাপের পরীক্ষা ভারতের বাইরে অল্পসংখ্যক স্বেচ্ছাসেবীর ওপর করায় তার নিরাপত্তা ও কার্যকারিতার তথ্য অল্প। এতে ভারতীয় অংশগ্রহণকারীর কোনো তথ্য নেই।

এর আগে ভারতীয় সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করে তাঁরা সন্তুষ্ট বলে জানিয়েছিলেন আরডিআইএফের সিইও কিরিল দিমিত্রিভ। তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, টিকাটি কোভিড–১৯–এর বিরুদ্ধে যুদ্ধে ভারতের কাছে একটি নিরাপদ এবং বৈজ্ঞানিকভাবে বৈধ বিকল্প হবে।’ তবে রাশিয়ার এ আশায় জল ঢেলেছে দিল্লি।

তবে ভারতীয় ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমোদন না পাওয়ার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি আরডিআইএফ।

গত সেপ্টেম্বরেই রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছিল যে কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাচটি সাধারণ নাগরিকদের জন্য বাজারে ছাড়া হয়েছে।

করোনার টিকা বিশ্বের সবার আগে অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া। তারা বড় আকারের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের আগেই এর অনুমোদন দেওয়ায় গবেষক ও চিকিৎসকদের মধ্যে এর কার্যকারিতা ও নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তাঁর দেশের টিকার প্রশংসা করেছেন। তাঁর এক মেয়েও টিকা নিয়েছে বলে জানান। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বক্তৃতায় তিনি জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের এ টিকা দেওয়ার কথাও বলেছিলেন।

মন্তব্য করুন