ভারতের দীর্ঘতম সুড়ঙ্গপথ চালু হচ্ছে এ মাসের শেষের দিকে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এই পথ উদ্বোধন করার কথা রয়েছে। ৯ দশমিক ২ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সুড়ঙ্গপথ জম্মু ও শ্রীনগরের মধ্যে যানবাহন চলাচলের সময় আড়াই ঘণ্টা কমিয়ে দেবে। এটি নির্মাণ করতে খরচ হয়েছে ৩ হাজার ৭২০ কোটি রুপি।

২০১১ সালের ২৩ মে শুরু হয়েছিল এই সুড়ঙ্গপথের নির্মাণকাজ। ১ হাজার ২০০ মিটার উঁচু একটি পাহাড়ের মধ্য দিয়ে চলে গেছে এই পথ। এটিই হবে ভারতের দীর্ঘতম টানেল বা সুড়ঙ্গপথ। এই পথে বায়ু চলাচল, অগ্নিনির্বাপণ, সিগনালসহ বিদ্যুৎ-ব্যবস্থা সবকিছুই আধুনিক প্রযুক্তিতে আন্তর্জাতিক মানে তৈরি করা হয়েছে। এটিতে রয়েছে ‘ইন্টিগ্রেটেড টানেল কন্ট্রোল সিস্টেম’।

সুড়ঙ্গপথটি নির্মাণ করছে ‘ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস’। এই সংস্থার প্রকল্প পরিচালক জে এস রাঠোর বলেছেন, গোটা সুড়ঙ্গপথ বা টানেলে ৭৫ মিটার ব্যবধানে মোট ১২৪টি সিসি টিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। আছে আগুন নেভানোর স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা। ফোন ব্যবহারের ব্যবস্থাও থাকছে এই সুড়ঙ্গপথে। তবে এই পথে পাঁচ মিটারের বেশি উচ্চতার গাড়ি বা দাহ্য পদার্থ নিয়ে কোনো কন্টেইনার প্রবেশ করতে পারবে না। সুড়ঙ্গপথে গাড়ির সর্বোচ্চ গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ৫০ কিলোমিটার। গাড়ির লাইট রাখতে হবে নিচু বিমে। এটা বাধ্যতামূলক। এই সুড়ঙ্গপথে ছয় মিটার ব্যাসার্ধের আপৎকালীন রাস্তাও থাকবে।

৯ ও ১৫ মার্চ এই সুড়ঙ্গপথে পরীক্ষামূলকভাবে যান চলাচল করানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী পথটি উদ্বোধন করার পর তা তুলে দেওয়া হবে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের হাতে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন