default-image

ভারতের সাবেক কেন্দ্রীয়মন্ত্রী যশোবন্ত সিং মারা গেছেন। আজ রোববার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

আজ দিল্লির আর্মি হাসপাতালের এক বিবৃতিতে বলা হয়, আজ স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ৫৫ মিনিটে যশোবন্ত সিংয়ের মৃত্যু হয়। অসুস্থতার জন্য তাঁকে গত ২৫ জুন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আজ সকালে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাঁর কোভিড-১৯ নেগেটিভ ছিল।

বিজ্ঞাপন

যশোবন্ত সিংয়ের মৃত্যুর খবরে গভীর শোক জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘যশোবন্ত সিংজি রাজনীতি ও সমাজের প্রতি তাঁর অনন্য দৃষ্টির জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। বিজেপিকে শক্তিশালী করতে তিনি অনন্য ভূমিকা রেখেছেন। আমাদের দুজনের মধ্যে যে ঘনিষ্টতা, তা আমি কখনো ভুলব না। তাঁর পরিবার ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি সমবেদনা জানাই। ওম শান্তি।’

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী যশোবন্তের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। এই টুইট বার্তায় রাজনাথ সিং বলেছেন, ‘বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা ও সাবেক মন্ত্রী যশোবন্ত সিংয়ের মৃত্যুতে গভীরভাবে বেদনাহত আমি। অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে তিনি এ দেশের সেবা করেছেন।’

বিজ্ঞাপন

ভারতের সেনাবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা যশোবন্ত সিং বিজেপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের অন্যতম একজন। ১৯৫০–এর দশকে তিনি সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা ছিলেন। সেখান থেকে অবসর নিয়ে তিনি রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ২০১৪ সালে রাজস্থানের বারমার লোকসভা কেন্দ্রে লড়ার জন্য দলের টিকিট চেয়ে তিনি ব্যর্থ হন। এরপর থেকে দলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের অবনতি ঘটে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রতিরক্ষামন্ত্রীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। পার্লামেন্টে শক্তিশালী একজন তার্কিক হিসেবে তিনি সুপরিচিত ছিলেন। দলের মনোনয়ন না পেয়ে ২০১৪ সালে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়েন। তবে সে নির্বাচনে তিনি হেরে যান।

যশোবন্ত সিং ছয়টি বই লিখেছেন। এর মধ্যে ‘জিন্নাহ: ইন্ডিয়া, পার্টিশন, ইনডিপেনডেন্স’ ও ‘ডিফেন্ডিং ইন্ডিয়া’ উল্লেখযোগ্য।

মন্তব্য পড়ুন 0