বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, ওই ব্যক্তি করোনা টিকার দুটি ডোজ নিয়েছিলেন। এমনকি সম্প্রতি তিনি বিদেশে ভ্রমণও করেননি। এরপরও গত ১৫ ডিসেম্বর ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। তখন থেকেই তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

পরে ২১ ডিসেম্বর ওই ব্যক্তির আবার করোনা পরীক্ষা করা হলে ফল নেগেটিভ আসে। আগে থেকেই তাঁর ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের মতো শারীরিক জটিলতা ছিল। এ কারণে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়। পরে ২৫ ডিসেম্বর জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের ফল এলে দেখা যায়, তিনি অমিক্রনে আক্রান্ত। এর ছয় দিন পর ৩১ ডিসেম্বর তাঁর মৃত্যু হয়।

ভারতে অমিক্রন শনাক্তের পর এখন পর্যন্ত ২ হাজার ১৩৫ জনের শরীরে ধরনটির উপস্থিতি মিলেছে। এর মধ্যে মহারাষ্ট্র রাজ্যে সর্বাধিক ৬৫৩ জন অমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন। এরপরেই দিল্লিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬৪ জন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করে ৫৮ হাজার ৯৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আগের দিন শনাক্ত হয়েছিল ৩৭ হাজার ৩৭৯ জন। সে হিসাবে এক দিনেই রোগী শনাক্ত বেড়েছে ৫৫ শতাংশ।

ভারতে এখন পর্যন্ত ১৪৭ কোটির বেশি ডোজ করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে। এই মুহূর্তে দেশটিতে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হচ্ছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন